গরুর মূত্র খেয়েছি; আবার খাব! দিলীপ ঘোষ

করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক দাবি করে গরুর মূত্র নিয়ে বুজরুকি ছড়ানো বন্ধ করেনি ভারতের ক্ষমাতসীন হিন্দুত্ববাদী বিজেপি। সওয়াল করেছেন বিজেপি–র পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি দিল্লিতে বলেছেন, ‘‌হিন্দুরা গরুর মূত্র চরণামৃত জ্ঞানে পান করে। আমি নিজে গরুর মূত্র খেয়েছি, আবার খাব।

শুধু দিলিপ নয়; বিজেপি প্রায় নেতাকর্মীরা গরুর মূত্র খাওয়ানো নিয়ে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) রায়গঞ্জে বিজেপি–র উদ্যোগে স্থানীয় গোশালা বাজারে গরুপুজা করার পাশাপাশি গরুর মূত্র পান করানো হয় স্থানীয় বাসিন্দাদের। বিজেপি–র জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ী বলেছেন, ‘পঞ্চামৃতের অন্যতম গোমূত্র। একসময়ে ছাই দিয়ে দাঁত মাজা হত। গোবর দিয়ে ঘর লেপা হত। আধুনিক যুগেও অনেক রোগ গরুর মূত্র পানে ভাল হয়।

বিজেপি–র উত্তর শহর মণ্ডল সভাপতি আর এক ধাপ এগিয়ে বিচিত্র কথা বলেছেন। তার বক্তব্য, ‘প্রাচীন কাল থেকে ভাইরাস, ব্যাকটিরিয়া রোধে গোবর, গরুর মূত্র ব্যবহারের রীতি মেনেই কর্মসূচি হয়েছে।

এদিকে বিজেপি–র মহিলা মোর্চার টাউন সভাপতি অর্পিতা মিত্র বলেন, ‘‌আমাদের বিশ্বাস গরুর মূত্র পান করলে ভাইরাস থেকে মুক্তি মিলবে।’‌

তবে তারই দলের সাংসদ লকেট চ্যাটার্জি উল্টো কথা বলেছেন। তিনি বলেছেন, ‘‌বিজ্ঞানের ওপর ভরসা রাখা উচিত। করোনা নিয়ে বিজ্ঞানীরা গবেষণা চালাচ্ছেন। কোনও অবৈজ্ঞানিক পন্থা গ্রহণ করা উচিত নয়।’

কটাক্ষ করে সাংসদ মানস ভুঁইয়া বলেছেন, ‘‌যারা এ সব বলছে তারা উন্মাদ। তাদের চিকিৎসক দেখানো উচিত। বিজেপি–র রাজ্য সভাপতি দিলিপের চিকিৎসা দরকার। কুসংস্কার ছড়িয়ে দিয়ে দেশটাকে ধ্বংস করার চেষ্টা চলছে।’‌

সূত্র: আজকাল

Leave a Reply