সূর্য অভিযানে যেতে চায় ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা

নভেম্বর ২, ২০১৯ আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারতের চাঁদ অভিযান ব্যর্থতার মধ্যে বড় ঘোষণা দিল ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা (ইসরো)।

দিল্লি আইআইটির সমাবর্তন অনুষ্ঠানে ইসরোর চেয়ারম্যান কে শিবন বলেন, ভারতের চন্দ্রযাত্রা ব্যর্থ হয়নি। চন্দ্রযাত্রায় চমক থাকতে থাকতেই পরবর্তী মিশনগুলোর জন্য প্রস্তুত হচ্ছে ইসরো। আগামী বছর থেকে আরও তিন ঐতিহাসিক লক্ষ্যের পথে পা বাড়াবে ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা। শিবন বলেছেন, হেরে গেলে চলবে না। চাঁদের পরে সূর্যের দেশে ছুটবে ইসরো। গগনযানে চেপে মহাকাশে পাড়ি দেবেন তিন নভোচারী। পৃথিবীর কক্ষপথে সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি স্পেস স্টেশন বানানোর কাজও শুরু হবে। নাসার লুনার স্টেশনের মতো মহাকাশে নিজেদের বাড়ি বানিয়ে নতুন নজির গড়বে ভারত।

ইসরোর ‘সোলার মিশন’ নিয়ে উত্তেজনা তুঙ্গে। কারণ নাসা আর ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সির (ইএসএ বা ‘এসা’) পর ভারতই প্রথম পাড়ি দিচ্ছে সৌর এ। এই অভিযান সফল হলে মহাকাশবিজ্ঞানের ইতিহাসে পাকাপাকি ভাবে সেরার শিরোপাটা ছিনিয়ে নেবে ভারত। ইসরোর চেয়ারম্যান কে শিবন বলেছেন, ‘পৃথিবী থেকে ১৫ লক্ষ কিলোমিটার দূরে সূর্য ও পৃথিবীর মাঝের এক কক্ষপথ ‘ল্যাগরাঞ্জিয়ান পয়েন্ট’ বা ‘ল্যাগরেঞ্জ পয়েন্ট’-এ ল্যান্ড করবে স্যাটেলাইট আদিত্য এল-১। সূর্যের বাইরের সবচেয়ে উত্তপ্ত স্তর করোনার যাবতীয় তথ্য সে তুলে দেবে আমাদের হাতে। এই সোলার-মিশন তাই সবদিক দিয়েই খুব গুরুত্বপূর্ণ।’’২০২০ সালের প্রথম দিকেই সূর্যের দিকে পাড়ি জমাবে আদিত্য এল-১।

কে শিবন আরও বলেন, চন্দ্রযানের ল্যান্ডার বিক্রম মুখ থুবড়ে (Hard Landing) পড়ে চাঁদের দক্ষিণ মেরুর আঁধারে হারিয়ে গেলেও জেগে আছে অরবিটার। চাঁদের কক্ষপথে (Lunar Orbit) পাক খেতে খেতেই একটার পর একটা চমক দিয়ে যাচ্ছে সে। চাঁদে অবতরণ না করেও, চাঁদের মাটির গোপন কথা তুলে আনবে চন্দ্রযানের অরবিটার।