একবিংশ শতাব্দী হবে ইসলামের শতাব্দী: মাওলানা মামুনুল হক

| মাহবুবুল মান্নান

ঢাকা জামেয়া রাহমানীয়ার শায়খুল হাদীস মাওলানা মামুনুল হক বলেছেন, মানব জীবন যতই দুঃখময় হোক না কেন একপর্যায়ে গভীর অমানিশা কেটে গিয়ে দেখা দেয় প্রভাত সূর্যের রশ্মি, সুন্দর-সুখী ও বিপদমুক্ত বাঞ্ছিত মুহূর্ত। কেননা রাত যত গভীর হয় প্রভাত তত নিকটে আসে। বর্তমানে ইসলাম ও মুসলমানের উপর চলমান সংকটের অমানিশার ঘোর কেটে অচিরেই একবিংশ শতাব্দী হবে ইসলামের শতাব্দী।

সোমবার (১৬মার্চ) চট্টগ্রাম পশ্চিম পটিয়া ভেল্লাপাড়া ইসলামী যুব কাফেলার ব্যবস্থাপনায় আয়োজিত ইসলামী মহাসম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মাওলানা মামুনুল হক বলেন, সাড়ে সাতশত বছর ভারতকে মুসলমানরা কঠিন মেহনতের মাধ্যমে সাজিয়ে তোলেছে। তাজমহল, কুতুবমিনার, দিল্লী জামে মসজিদসহ অসংখ্য স্থাপনা রয়েছে যেগুলোর পিছনে মুসলমানদের অসামান্য অবদান রয়েছে। কিন্তু সেই ভারতে আজ প্রতিনিয়ত মুসলমানদের উপর জুলুম নির্যাতন চালানো হচ্ছে। বাড়ী-ঘর ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করা হচ্ছে। জ্বালিয়ে দেওয়া হচ্ছে আল্লাহর ঘর মসজিদকে। একদিন এর জবাব অত্যাচারীদেরকে দিতেই হবে।

তিনি বলেন, পৃথিবীতে সবসময় দুইটা দল থাকবে, একটা হকের পক্ষে আরেকটা বাতিলের পক্ষে। একটা তাওহীদের পক্ষে,আরেকটা কুফরের পক্ষে।এ কটা গরুর দুধ পান করবে আরেকটা গরুর মূত্র পান করবে। কিন্তু পরিশেষে রাসুলের ভবিষ্যৎ বাণী অনুযায়ী হকের পক্ষের, তাওহীদের পক্ষের ও গরুর দুধ পানকারীদের দলই বিজয়ী হবে। শেষ হাসি তারাই হাসবে। তাই তিনি সকলকে সদাসর্বদা হকের পক্ষে থাকার জন্য আহবান জানিয়েছেন।

জিরি মাদরাসার সহকারী পরিচালক মাওলানা খোবাইব এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে আরো বয়ান করেন মাওলানা ক্বারী রফিকুল ইসলাম; নেত্রকোনা, জামেয়া পটিয়ার সিনিয়র ক্বারী মাওলানা ক্বারী নবী হাসান, মাওলানা মুফতী শোয়াইব, মাওলানা নবী হোসাইন ও মাওলানা আব্দুল বারী প্রমুখ।

Leave a Reply