ভোলায় ‘অভাবের তাড়নায়’ শিশু কন্যাকে হত্যা করলেন মা!

ভোলার তজুমদ্দিনে পারিবারিক অভাব-অনটন ও অসুস্থতার কারণে দুই বছরের শিশু কন্যাকে গলা কেটে হত্যা করলেন মা। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা মর্গে প্রেরণ করে।

ওই শিশুর পিতা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করলে পুলিশ মা রুবিনাকে আটক করে জেলহাজতে প্রেরণ করে।

তজুমদ্দিন থানার ওসি (তদন্ত) এনায়েত হোসেন জানান, বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) সন্ধ্যায় উপজেলার শম্ভুপুর ইউনিয়নের বাদলীপুর গ্রাম থেকে মরিয়ম নামের দুই বছরের শিশু কন্যার গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়।

ঘটনাটি সন্দেহজনক হওয়ায় শিশুর মা রুবিনা বেগমকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করলে পারিবারিক অভাব-অনটন ও অসুস্থতার কারণে দুই বছরের শিশু কন্যা মরিয়মকে গলাকেটে হত্যার কথা স্বীকার করে। ওই শিশুর পিতা নাজিম উদ্দিন এজাহার দাখিল করলে ৩০২ ধারায় হত্যা মামলা রুজু হয়।

তজুমদ্দিন থানায় মামলার বাদী নাজিমউদ্দিন বলেন, আমার অভাব-অনটনের সংসারে তিন সন্তান। দুই বছরের কন্যা মরিয়মের মলদ্বারে ঘাঁ’তে ওষুধ লাগানোর ফলে চিৎকার করছিল। বিরক্ত হয়ে মা তাকে গলা কেটে হত্যা করে।

অফিসার ইনচার্জ এসএম জিয়াউল হক জানান, লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। বাবার অভিযোগের প্রেক্ষিতে হত্যা মামলা দায়ের করে ওই কন্যার মাকে আটক করে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।