বাংলাদেশের অসহায়দের জন্য ত্রাণসামগ্রী দিয়েছে তুরস্ক

বাংলাদেশের অসহায় জনগোষ্ঠীর জন্য ত্রাণসামগ্রী দিয়েছে তুরস্ক। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলামের নেতৃত্বাধীন সংগঠন ‘সবাই মিলে সবার ঢাকা’র মাধ্যমে সাড়ে তিন হাজার প্যাকেট ত্রাণসামগ্রী দেয় তুরস্ক।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর বনানী বিদ্যানিকেতন স্কুল প্রাঙ্গণে আনুষ্ঠানিকভাবে এসব খাদ্যসামগ্রীর প্যাকেট হস্তান্তর করা হয়।

আতিকুল ইসলামের কাছে এসব সামগ্রী তুলে দেন ঢাকায় নিযুক্ত তুরস্কের রাষ্ট্রদূত মুস্তাফা ওসমান তুরান।

তুরস্কের বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের পক্ষ থেকে এসব সামগ্রী বাংলাদেশের অসহায়, দুস্থ ও করোনার কারণে অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া জনগণের জন্য উপহার হিসেবে দেয়া হয়।

খাদ্যসামগ্রীর মধ্যে আছে চাল, ডাল, ছোলা, তেল, সাবানসহ অন্য পণ্য। পরিবারের সদস্য সংখ্যার ওপর ভিত্তি করে একটি পরিবারের পুরো রমজান মাসের জন্য প্রয়োজন অনুযায়ী খাদ্যসামগ্রী দেয়া হয় প্রতিটি প্যাকেটে।

এসময় তুর্কি রাষ্ট্রদূত মুস্তাফা ওসমান তুরান বাংলাদেশের জনগণকে উদ্দেশ্য করে বলেন, সামনে রমজান মাস উপলক্ষে তুরস্কের পক্ষ থেকে আপনাদের জন্য এ উপহার। আমরা জানি, এ করোনার কারণে আপনারা দুঃসময় পার করছেন। এসময়ে আমরা আপনাদের একা রাখতে চাই না। এ পুরো রমজান মাসে আমরা আপনাদের পাশে আছি। রমজানের পরেও থাকবো। তুরস্ক তার সমস্ত শক্তি নিয়ে আপনাদের পাশে থাকবে। আজ তুরস্কে জাতীয় শিশু দিবস উদযাপিত হচ্ছে। এ দিবস উপলক্ষে আপনাদের পরিবারের শিশুদের প্রতি উৎসর্গ করে এসব পণ্য আমরা দিলাম।

অন্যদিকে মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, তুরস্ক ও বাংলাদেশ খুবই বন্ধুপ্রতিম দুই রাষ্ট্র। আমাদের পাশে থেকে এমন উপহার দেওয়ার জন্য তুরস্কের প্রতি আমি কৃতজ্ঞতা জানাই। সর্বোচ্চ স্বচ্ছতা নিশ্চিত করেই এসব সামগ্রী বিতরণ করা হবে। যারা আসলেই দরিদ্র, যাদের আসলেই এমন সাহায্য দরকার তাদের মধ্যেই এগুলো বিতরণ করা হবে। এর পাশাপাশি ঢাকায় থাকা বিভিন্ন দেশের কূটনৈতিকদের প্রতি আমার আহ্বান থাকবে এ দুঃসময়ে আমাদের সাহায্য করার। সমাজের যারা বিত্তশালী আছেন তাদের আহ্বান জানাবো তারা যেন তাদের আশপাশের অসহায় মানুষদের সাহায্যে এগিয়ে আসেন। কারণ সবাই মিলেই সবার ঢাকা গড়ে তুলতে হবে।