একতরফা সিদ্ধান্ত নিলে পরিণতি খারাপ হবে: ভারতকে কঠোর হুঁশিয়ারি চীনের

লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা (এলএসি) বরাবর সীমান্ত সঙ্ঘাত নিয়ে আলোচনার টেবিলে বসেছিল ভারত ও চীনের সেনা। কিন্তু তার মাঝে আচমকাই রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ।

এ ঘটনার পর আজ মঙ্গলবার (১৬ জুন) চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, ‘‘ভারতীয় বাহিনী সীমান্ত পেরিয়েছিল এবং চীনা সেনার উপর প্ররোচনামূলক ভাবে হামলা চালিয়েছে।’’

বেজিংয়ের মতে, ‘‘ভারতীয় সেনার ওই পদক্ষেপের কড়া প্রতিবাদ করে চীন।’’ একইসঙ্গে ওই কাণ্ডের পর নয়াদিল্লি যেন ‘একতরফা ভাবে’ কোনও পদক্ষেপ না করে সেই হুঁশিয়ারিও দেওয়া হয়েছে বেজিংয়ের তরফে।

সীমান্ত নিয়ে ভারত ও চীনের মধ্যে উত্তেজনা যখন প্রশমনের প্রক্রিয়া চলছে, ঠিক তখনই উত্তেজনা পারদ চরম পর্যায়ে পৌঁছে গেল। দু’দেশের মধ্যে সাড়ে তিন হাজার কিলোমিটার এলাকা জুড়ে ছড়িয়ে থাকা সীমান্তে এমন ঘটনা শেষ বার দেখা গিয়েছে ১৯৭৫ সালে, অরুণাচল প্রদেশে। ৪৫ বছর পর সীমান্তে এমন হিংসাত্মক ঘটনা কার্যত ভারতকে দায়ি করছে চীন।

চিনের সরকারি সংবাদমাধ্যম গ্লোবাল টাইমস বলছে, ‘সোমবার গলওয়ান উপত্যকায় চীন ও ভারতীয় সেনার মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ভারতীয় সেনা সীমান্ত পেরিয়ে বেআইনি কার্যকলাপ চালাচ্ছিল এবং চীনা বাহিনীর উপর প্ররোচনামূলক আক্রমণ চালায়। এসময় ভারতীয় বাহিনীর
অনুপ্রবেশের প্রতিবাদ করেছে চীনা বাহিনী।

সূত্র: আনন্দবাজার

Previous post করোনা; বিশ্বের বহু দেশ ভারতের প্রশংসা করছে: মোদী
Next post বাজেটে স্বাস্থ্যখাত নিয়ে জাতির সাথে মস্করা করা হয়েছে: অধ্যক্ষ ইউনুছ আহমাদ