করোনা চিকিৎসা: ট্রাম্পের পরামর্শে জীবাণুনাশক খেতে চেয়েছিল শতাধিক মার্কিনি

মহামারী করোনাভাইরাস রোধে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের পরামর্শের পর দেশটির শতাধিক নাগরিক জীনাণুনাশক খেতে চেয়েছিল বলে খবর পাওয়া গেছে।

আমেরিকার রাষ্ট্র মেরিল্যান্ডের গভর্নরের অফিস থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিবিসির খবরে বলা হয়, ট্রাম্পের বক্তেব্যর পর মেরিল্যান্ডের গভর্নরের অফিসের হটলাইনে জীবাণুনাশক খাওয়ার ব্যাপারে একশর বেশি টেলিফোন আসে। এরপরই সতর্কবার্তা জারি করে জরুরি ম্যানেজমেন্ট এজেন্সি।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান জীবাণুনাশক নির্মাতা প্রতিষ্ঠান রেকিট বেনকিজার বলছে, কোনো অবস্থাতেই তাদের তৈরি পণ্য শরীরের ইঞ্জেকশন হিসেবে প্রয়োগ বা খাওয়া উচিত হবে না।

জীবাণুনাশক বা এ জাতীয় উপাদানগুলো বিষাক্ত হতে পারে। এগুলো শরীরের সংস্পর্শে এলে এমনকি ত্বক, চোখ বা শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যারও তৈরি করতে পারে।

বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউজে করোনাবিষয়ক একটি টাস্কফোর্সের ব্রিফিংয়ে একজন কর্মকর্তা মার্কিন সরকারের একটি গবেষণা প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন। যেখানে তুলে ধরা হয় যে, সূর্যালোক ও তাপের সংস্পর্শে এলে করোনাভাইরাস দুর্বল হয়ে পড়ে। সেখানে বলা হয়, লালা বা শ্বাসতন্ত্রের তরলে থাকা ভাইরাসের জীবাণু পাঁচ মিনিটেই মেরে ফেলতে পারে ব্লিচ।

ডোনাল্ড ট্রাম্প, অতিবেগুণি রশ্মি বা শক্তিশালী আলো ব্যবহার করে চিকিৎসা করা যায় কিনা, তা নিয়ে আরো গবেষণা করার পরামর্শ দেন। সেই সঙ্গে ইনজেকশন দিয়ে জীবাণুনাশক শরীরে প্রবেশ করিয়ে কিছু করা যায় কিনা, তাও পরীক্ষা করে দেখতে বলেন।

তার এমন আজগুবি পরামর্শের পর সামাজিক মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় বইছে।