করোনা উপসর্গ নিয়ে ইতালি প্রবাসীর মৃত্যু; ২ বাড়ি লকডাউন

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলায় করোনাভাইরাসের উপসর্গ জ্বর ও শ্বাসকষ্টে এক ইতালি প্রবাসীর মৃত্যু হয়েছে। এদিকে এ ঘটনার পর ওই প্রবাসীর বাড়িসহ দুটি বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করেছে প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার (৯ এপ্রিল) গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় ঢাকায় নিয়ে আসার সময় পথে মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, ওই ব্যক্তি দীর্ঘদিন ধরে ইতালিতে ছিলেন। সম্প্রতি দেশে ফেরেন। বেশ কয়েক দিন ধরে জ্বর ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন তিনি। এরপর বুধবার (৮ এপ্রিল) তাঁর অবস্থার অবনতি হয়। পরে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাকে নোয়াখালীর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার আরো অবনতি ঘটলে পরদিন বৃহস্পতিবার সকালে তাঁকে ঢাকায় নেওয়া হচ্ছিল। পথে তাঁর মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের সহকারী তত্ত্বাবধায়ক মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ওই ইতালি প্রবাসীর প্রচণ্ড শ্বাসকষ্ট ছিল। তাঁর ফুসফুস ঠিকভাবে কাজ করছিল না। এ জন্য তাঁকে ঢাকায় পাঠানোর পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল।

এদিকে জেলা সিভিল সার্জন মুহাম্মাদ মোমিনুর রহমান বলেন, ইতালি প্রবাসীর মৃত্যুর খবর পেয়ে স্বাস্থ্য বিভাগের লোকজন গিয়েছিলেন। তাঁরা নমুনা সংগ্রহ করে এনেছেন। পরীক্ষায় করোনাভাইরাস ‘পজিটিভ’ এলে লাশ ঢাকায় দাফন করা হবে। আর ‘নেগেটিভ’ এলে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হবে।

এ ব্যাপারে সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুহাম্মাদ আবদুস সামাদ বলেন, উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশে ইতালি প্রবাসীর বাড়িসহ দুটি বাড়ি লকডাউন করেছেন। বাড়ি দুটিতে লাল পতাকা টাঙিয়ে দেওয়া হয়েছে। সেখানকার চারটি পরিবারের ২৬ জনকে কোয়ারেন্টিনে থাকতে বলা হয়েছে।