করোনা পরীক্ষায় ফি আরোপ হলে দেশব্যাপী আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবো: ইশা ছাত্র আন্দোলন

করোনাভাইরাসে সৃষ্ট বৈশ্বিক বিপর্যয়ে বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষ অর্থনৈতিক দৈন্যতার মধ্যে দিনাতিপাত করছে। এমতাবস্থায় করোনা নমুনা পরীক্ষায় সরকারিভাবে ফি আরোপ সম্পূর্ণ অমানবিক বলে মন্তব্য করেছেন ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন এর কেন্দ্রীয় সভাপতি এম. হাছিবুল ইসলাম।

তিনি বলেন, আমরা স্পষ্টভাবে বলে দিতে চাই, করোনাকালীন সময়ে ক্ষমতাসীন দলের নেতারা ডাকাতিতে নেমেছে, স্বাস্থ্যখাত দুর্নীতির রেকর্ড ভঙ্গ করেছে, চিকিৎসাদানে অবহেলা চরমে, তথাপিও আমরা বক্তব্য-বিবৃতিতেই সীমাবদ্ধ ছিলাম স্বাস্থ্যবিধির কথা চিন্তা করে। কিন্তু এহেন অমানবিক ও দুর্নীতিতে সহায়ক সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হলে আমরা দেশব্যাপী আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবো। সুতরাং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে এখনই ভাবতে হবে এবং এই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসতে হবে।

সোমবার (২৯ জুন) সকাল ১০টায় সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে অনলাইনে অনুষ্ঠিত মজলিসে শুরার অধিবেশনে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এম. হাছিবুল ইসলাম বলেন, দেশের মানুষ অর্থাভাবে তিনবেলা খাবার খেতে পারছেনা। বিধায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলায় সাধারণ মানুষের অনীহা রয়েছে। উপসর্গ নিয়েও পরিক্ষা করাচ্ছেনা এমন তথ্যও অহরহ। এহেন পরিস্থিতিতে নমুনা পরীক্ষায় ফি আরোপ করার কোনো কারণ নেই বরং এতে স্বাস্থ্যখাতে দুর্নীতির নতুন দ্বার উন্মোচন করে দেওয়া হচ্ছে কিনা তা এখনই ভেবে দেখা দরকার।

তিনি আরো প্রায় সবগুলো গ্রহণযোগ্য গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, ইতোমধ্যে ফি চালুর ব্যবস্থা সংক্রান্ত প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের হাসপাতাল অনুবিভাগ থেকে পেশ করা হয়েছে এবং এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকেও সবুজ সংকেত পাওয়া গেছে। যা রীতিমতো সচেতনদের ভাবিয়ে তুলছে।

সংগঠনটির সেক্রেটারি জেনারেল নূরুল করীম আকরাম এর সঞ্চালনায় পর্যালোচনা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মুহাম্মাদ আব্দুল জলিল, জয়েন্ট সেক্রেটারি আব্দুজ্জাহের আরেফী, সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ মুহাম্মাদ আল-আমীন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ইউসুফ আহমাদ মানসুর, প্রচার ও আন্তর্জাতিক সম্পাদক কে এম শরীয়াতুল্লাহ, প্রকাশনা সম্পাদক সাখাওয়াত উল্লাহ, অর্থ ও কল্যাণ সম্পাদক ইবরাহীম হুসাইন, আলিয়া মাদরাসা সম্পাদক শেখ ইহতেশাম বিল্লাহ আজিজী প্রমুখ।