করোনা রোগীদের জন্য প্রয়োজনে নিজের বাড়ি দিয়ে দেব: মমতা

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেও গুরুতর অসুস্থ নন এমন রোগীদের জন্য ‘সেফ হাউস’ চালু করছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ সরকার। সেখানে দিনে দু’বার চিকিৎসকরা গিয়ে রোগীদের দেখে আসবেন। শুধু যারা গুরুতর অসুস্থ তাদেরই হাসপাতালে ভর্তি করা হবে। বুধবার এ ঘোষণা দিয়েছেন রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তিনি জানান, রাজ্য জুড়ে মোট ১০৪টি সেফ হাউস চালু করা হবে। আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লে প্রয়োজনে সেফ হাউস আরও বাড়ানো হবে। এ কাজে প্রয়োজনে নিজের বাড়িটিও দিয়ে দিতে পারেন বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী।

মমতা বলেন, অনেক হাসপাতালে বেড সংকটের অভিযোগ আসছে। এই বিষয় স্বচ্ছতার জন্য এখন থেকে ঘণ্টায় ঘণ্টায় সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালগুলোকে খালি বেডের সংখ্যা জানাতে হবে।

বেসরকারি নার্সিং হোমগুলো যেভাবে আকাশচুম্বী বিল নিচ্ছে সেই বিষয়ে বৃহস্পতিবার জরুরি বৈঠক হবে বলেও জানান তিনি।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী বলেন, পুলিশ, ডাক্তার, মিউনিসিপ্যাল কর্মী, আশা-কর্মী যারা করোনাযুদ্ধে সম্মুখভাগে লড়ছেন তাদের অতিরিক্ত অর্থ দেওয়া হবে। দুর্গম এলাকায় কাজ করলে সরকারি কর্মীরা যে বোনাস পান, এখন থেকে করোনাযোদ্ধারাও সেই অর্থ পাবেন।

এছাড়া চূড়ান্ত বর্ষের মেডিকেল ও নার্সিং পড়ুয়াদেরও করোনা মোকাবিলায় কাজে লাগানো হবে বলে জানান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Previous post আমেরিকার আসন্ন নির্বাচনে চীনের সাহায্য চেয়েছেন ট্রাম্প
Next post ‘পুলিশ কমিশনারের চিঠি ফাঁসের ঘটনায় সাংবাদিকদের জিজ্ঞাসাবাদ গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ’