মিরসরাইয়ে ৬০ বস্তা সরকারি চালসহ আটক ২

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে পরিত্যক্ত একটি গুদামে অভিযান চালিয়ে সরকারি ৬০ বস্তা চালসহ দুইজনকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব-৭) একটি দল। এসময় দক্ষিণ ওয়াহেদপুর গ্রামে হাফিজুর রহমানের ছেলে নুরুজ্জামান নুরু ও জাকির হোসেনের ছেলে আলা উদ্দিনকে আটক করে র‌্যাব।

বুধবার (১৩ মে) রাতে ওয়াহেদপুর ইউনিয়নের ছোটকমলদহ দক্ষিণ ওয়াহেদপুর গ্রামের একটি গুদাম থেকে চালগুলো উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব-৭ এর ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক নুরুজ্জামান বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে মিরসরাইয়ের ওয়াহেদপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ ওয়াহেদপুর গ্রামে অভিযান পরিচালনা করেছি। এসময় সরকারি চাল মজুদ রাখার সঙ্গে জড়িত নুরুজ্জামান ও তার সহযোগী আলা উদ্দিনকে আটক করা হয়েছে। এরপর নুরুজ্জামানের বাড়ির সামনে অবস্থিত একটি গোডাউন থেকে ৬০ বস্তা সরকারি চাল উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার করা চালের পরিমাণ ১ হাজার ৫৮৩ কেজি।

তিনি আরও জানান, কিছু চালের বস্তায় সরকারি দপ্তরের সিল রয়েছে। বেশিরভাগ চালের বস্তা পরিবর্তন করে আগুনে পুড়িয়ে ফেলেছে বলে স্বীকার করে আটক নুরুজ্জামান। চালগুলো কার কাছ থেকে নিয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে চাল ছাড়াও নুরুজ্জামান বিভিন্ন পণ্য লুটের সঙ্গে জড়িত রয়েছে বলে স্বীকার করেছেন। এ ঘটনায় থানায় মামলার করার প্রস্তুতি চলছে।

ওয়াহেদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফজলুল কবির ফিরোজ উদ্ধার করা চাল তার এলাকার নয় দাবি করে বলেন, নুরুজ্জামান সদ্য বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছে। এরপর সে বেপরোয়া হয়ে উঠে। সে ট্রাক চালকদের সাথে আঁতাত করে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে চলাচল করা গাড়ি থেকে বিভিন্ন পণ্য লুট করে। সে এলাকায় পুলিশের সোর্স ও নিজামপুর পুলিশ ফাঁড়ির অঘোষিত ক্যাশিয়ার হিসেবেও কাজ করে। মানুষকে বিভিন্ন সময় হয়রানি করে। মামলার ভয়ে মানুষ তার বিরুদ্ধে মুখ খোলার সাহস পায় না। সে সরকারি চালসহ আটক হওয়ায় এলাকার মানুষের মধ্যে স্বস্তি ফিরেছে।

মিরসরাই থানা পরিদর্শক (তদন্ত) বিপুল চন্দ্র দেবনাথ বলেন, চাল উদ্ধার ও আটকের বিষয় শুনেছি। তবে র‌্যাব আমাদের আনুষ্ঠানিকভাবে এখনও কিছু জানায়নি।