জর্ডান উপত্যকা দখলের ঘোষণা ইসরাইলের : ওআইসির জরুরী বৈঠক ডেকেছে সৌদি আরব

সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | আন্তর্জাতিক ডেস্ক


ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরের অধিকৃত জর্ডান উপত্যকা ও ডেড সি-র উত্তরাংশ ইসরায়েলের অন্তর্ভুক্ত করার পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে ইহুদিবাদী সন্ত্রাসীদের অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

পুনর্নির্বাচিত হলে এই এলাকাগুলোতে দখল করা হবে বলে মঙ্গলবার ইসরায়েলের দক্ষিণাঞ্চলীয় বন্দর শহর আশদোদে এক নির্বাচনী প্রচারণা সমাবেশে ঘোষণা করেন নেতানিয়াহু।

অঞ্চলটির বেশিরভাগই বর্তমানে দখলদার ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে থাকলেও, ৬৫ হাজার ফিলিস্তিনি এবং ১১ হাজার অবৈধ ইসরাইলী সেখানে বসবাস করছে।

ওই নির্বাচনী সমাবেশে তার দেওয়া ভাষণ ইসরায়েলের প্রধান টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতে সরাসরি সম্প্রচারিত হয়। ওই ভাষণেই এ পরিকল্পনার বিস্তারিত তুলে ধরেন ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী।

ওই এলাকাগুলোকে ‘ইসরায়েলের পূর্বাঞ্চলীয় সীমান্ত’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, “আজ আমি আমার পরিকল্পনা ঘোষণা করছি, নতুন সরকার গঠিত হওয়ার পর, জর্ডান উপত্যকা ও ডেড সি-র উত্তরাংশে ইসরাইলি সার্বভৌমত্ব কায়েম করতে চাই।”

তিনি আরও বলেন, “এটি করার জন্য আমি আপনাদের কাছ থেকে, ইসরাইলের নাগরিকদের কাছ থেকে, পরিষ্কার রায় পেলে তাৎক্ষণিকভাবে পদক্ষেপ নিতে পারবো।”

এদিকে নেতানিয়াহুর এ ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই জর্ডান, তুরস্ক ও সৌদি আরবের কর্মকর্তারা এ পরিকল্পনার তীব্র নিন্দা করেছেন। একে আগ্রাসন অভিহিত করে এটিকে বিপজ্জনক পদক্ষেপ বলে নিন্দা করেছে আরব লীগ।

এর প্রতিক্রিয়ায় ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস জানিয়েছেন, নেতানিয়াহু এ পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে গেলে ‘ইসরায়েলে সঙ্গে স্বাক্ষরিত সব চুক্তি ও ওইসব চুক্তির বাধ্যবাধকতার সমাপ্তি ঘটবে’।

এ পরিস্থিতিতে মুসলিম দেশগুলোর সর্ববৃহৎ সংগঠন অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কোঅপারেশনের (ওআইসির) পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের জরুরি ডেকেছে সৌদি আরব।

সূত্র : বিবিসি