ঢামেকের করোনা ইউনিটে দুইদিনে ২৬ জনের মৃত্যু

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত দুইদিনে (১২ ও ১৩ জুন) আরও ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে সাতজন করোনা পজিটিভ বলে ঢামেক মর্গ সূত্রে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, ১২ ও ১৩ জুন দুইদিনে মোট ২৬ জন মারা গেছেন। যাদের সাতজন করোনা পজিটিভ ছিল। বাকি ১৯ জন করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। ২৬ জনসহ ঢামেকের করোনা ইউনিটে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ১৭৬ জনে।

রাজধানীর কেন্দ্রে প্রধান এ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে করোনা ইউনিট চালু হয় গত ২ মে। পরে হাসপাতালের নতুন ভবনে (হাসপাতাল-২) তা বর্ধিত করা হয় ১৬ মে থেকে।

সূত্র জানায়, এ ইউনিটে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে অনেক রোগী ভর্তি হচ্ছেন। তাদের অনেকের করোনাভাইরাস সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে, অনেকে উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসার জন্য আসছেন।

ঢামেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. আলাউদ্দিন আল আজাদ সংবাদমাধ্যমকে জানান, করোনা রোগীদের জন্য সর্বপ্রথম ইউনিট চালু করা হয়েছিল ঢামেকের বার্ন ইউনিটে। সেখানে পজিটিভ ও উপসর্গ আছে এমন রোগীদের আলাদা আলাদা চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়। বার্ন ইউনিটে ২৫০টি শয্যার ব্যবস্থা রয়েছে। পরে ১৬ মে হাসপাতালের নতুন ভবনে করোনা ইউনিট-২ উদ্বোধন করা হয়। সেখানে ৫০০ রোগীর শয্যা তৈরি করা হয়েছে। সবমিলিয়ে ঢামেকে ৭৫০ করোনা রোগীর চিকিৎসার ব্যবস্থা আছে। এ ইউনিট দুটিতে করোনা রোগীদের চিকিৎসা চলছে।