ত্রাণচোরদের জনপ্রতিনিধি থাকার কোনো অধিকার নেই: চরমোনাই পীর

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতী রেজাউল করীম (চরমোনাই পীর) বলেছেন, করোনা মহামারীতে সারাদেশে সাধারণ ছুটি থাকায় দরিদ্র অসহায় ও মধ্যবিত্তের মানুষ মানবেতর জীবনযাপন করছে। সেই অসহায় মানুষের ত্রাণ নিয়ে সরকারদলীয় নেতাদের দুর্নীতি সহ্য করা যায় না। যারা জাতির এমন দুর্দিনেও ত্রাণ চুরি করে, তাদের জনপ্রতিনিধি থাকার কোনো অধিকার নেই।

রবিবার (১২ এপ্রিল) এক বিবৃতিতে চরমোনাই পীর এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, জাতির এই ক্রান্তিকালে যারা অসহায় মানুষের মুখের আহার কেড়ে নেয়, তারা মানুষ নামের পশু। এদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, তারা দলীয় বিবেচনায় ত্রাণ দিচ্ছে, ফলে অনেক অসহায় ও মধ্যবিত্তের মানুষ ত্রাণ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। সরকারি ত্রাণ নিয়ে আওয়ামী লীগের নেতাদের হরিলুট অবস্থা বিশ্বে বাংলাদেশকে কলঙ্কিত করছে। যারা এভাবে জাতির দুর্দিনেও ত্রাণ চুরি করে এরা জাতীয় গাদ্দার, এরা লুটেরা। তিনি বলেন, চাল চোরদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিন। ধরা পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই জেল দিন।

চরমোনাই পীর বলেন, সুষ্ঠুভাবে ত্রাণ বিতরণের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ডিসির নেতৃত্বে সর্বদলীয় ত্রাণ সমন্বয়ন কমিটি গঠন করে, তাদের মাধ্যমে তালিকা প্রস্তুত করে ত্রাণ বিতরণ করলে আশা করা যায় অসহায় ও বঞ্চিত জনগোষ্ঠীর কাছে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছবে।