জুয়ার আসরের মালিক যুবলীগ নেতা ‘ক্যাসিনো খালেদ’ ৭ দিনের রিমান্ডে

September 19, 2019

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি


অস্ত্র মামলায় রাজধানীর ফকিরাপুলের ইয়াংমেনস ক্লাবের জুয়ার আসরের মালিক যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে ৭ দিনের রিমান্ডে দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত (সিএমএম) এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে অস্ত্র ও মাদক মামলায় ‘ক্যাসিনো খালেদকে’ জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য আদালতে হাজির করে পুলিশ ১৪ দিনের রিমান্ড আবেদন করে। শুনানি শেষে আদালত অস্ত্র মামলায় তার ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে গুলশান থানায় অস্ত্র ও মাদক রাখা এবং মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে তিনটি মামলা দায়ের হয়।

খালেদা মাহমুদ ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে র‌্যাব-৩ এর পক্ষ থেকে এ মামলা করা হয়। গুলশান থানায় অস্ত্র ও ইয়াবা রাখার অভিযোগে এবং মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগে এ তিন মামলা করা হয়। আর মাদক আইনে মামলার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে মতিঝিল থানায়। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বুধবার রাতে খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে গ্রেফতারের সময় অস্ত্র ও ইয়াবা পাওয়া যায়। এ ছাড়া তার ক্যাসিনো থেকে নারী, মদসহ নিষিদ্ধ বস্তু উদ্ধার করে র‌্যাব।

বুধবার রাতে দীর্ঘ অভিযান শেষে গুলশানের বাসা থেকে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। এ সময় অস্ত্র, গুলি, মাদকসহ গ্রেফতার করা হয়। এর পর থেকে বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত র‌্যাব-৩ এর হেফাজতে ছিলেন খালেদ।

বৃহস্পতিবার মামলা দায়েরের পর খালেদকে গুলশান থানায় হস্তান্তর করা হয়।

বুধবার খালেদকে গ্রেফতারের আগে ফকিরাপুলের ইয়াংমেন ক্লাবে নিষিদ্ধ ক্যাসিনোতেও অভিযান চালায় র‌্যাব। এখান থেকে দুই নারীসহ ১৪২ জনকে গ্রেফতার করা হয়। এদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়েছে। ক্যাসিনোতে মদ আর জুয়ার বিপুল সরঞ্জামের পাশাপাশি প্রায় ২৫ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়।