দুঃসময়ে পালিয়ে বেড়ানো চিকিৎসকদের প্রয়োজন নেই: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশের এই দুঃসময়ে যারা চিকিৎসা না দিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন তাদের আর প্রয়োজন নেই।

তিনি আরও বলেন, এসব চিকিৎসক ভবিষ্যতে ডাক্তারি করতে পারবেন কিনা আমার সন্দেহ আছে।

মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) সকালে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে একথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

করোনাভাইরাস সন্দেহে চিকিৎসা না পেয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীর মৃত্যুর প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, চিকিৎসা না পেয়ে ঢাবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু কেনো হবে। সবাইকে এই দুঃসময়ে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যেতে হবে।

তিনি বলেন, যারা কাজ করেননি, নিজেদের সুরক্ষার জন্য পালিয়ে বেড়িয়েছেন। রোগীরা দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়িয়েছে কিন্তু চিকিৎসা পান নি সেসব চিকিৎসকদের জন্য কোনো প্রণোদনা নয়। কেউ যদি মনে করেন আমাদের প্রণোদনা দিলে আসব, তাহলে তাদেরকে অবজারভেশনে রাখব, এই তিন মাস কীভাবে কাজ করছেন দেখব। যদি আসলেই মানুষের সেবা দেন তারপরে তাদের কথা আমি চিন্তা করব। কারণ শর্ত দিয়ে আমি কাজে আনব না।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, যদি বাংলাদেশে তেমন দুর্দিন আসে, প্রয়োজনে বাইরে থেকে ডাক্তার নিয়ে এসে কাজ করব। এমন দুর্বল মানসিকতা যাদের তাদের আমার কিছু বলার নেই। রোগী কেন ফেরত যাবে? একজন রোগী ঘুরে ঘুরে চিকিৎসা পাবে না, কেন এমন হবে? কিন্তু একজন ডাক্তার তার দায়িত্ব থাকে। তাদের সুরক্ষার জন্য আমরা সব রকম চেষ্টা করে যাচ্ছি। তাহলে রোগী কেন ফেরত যাবে।

এদিকে করোনায় আক্রান্তদের চিকিৎসায় নিয়োজিত চিকিৎসক ও নার্সদের তালিকা তৈরি এবং জরুরি চিকিৎসা সেবায় যারা কাজ করছেন তাদেরকে বিশেষ প্রণোদনা দেওয়ার ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।