নাজিরহাট বড় মাদ্রাসার মুহতামিমের ইন্তিকালে আল্লামা কাসেমী’র শোক

চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে অবস্থিত আল-জামিয়াতুল আরাবিয়্যা নসীরুল ইসলাম নাজিরহাট (বড় মাদরাসা)এর মুহতামিম ও শায়খুল হাদীস মাওলানা শাহ মুহাম্মদ ইদরিস-এর ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ’র মহাসচিব শায়খুল হাদীস আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী।

আজ (২৮ মে) বৃহস্পতিবার এক শোকবার্তায় জমিয়ত মহাসচিব বলেছেন, মরহুম মাওলানা মুহাম্মদ ইদরিস ছিলেন একজন উঁচু মাপের আলেমে-দ্বীন ও মুহাদ্দিস এবং ঈমান-আক্বিদার আন্দোলনে একজন অগ্রগামী সিপাহসালার। তিনি ইলমী, আমলী এবং আধ্যাত্মিকতার অঙ্গনে বহুমুখী গুণের অধিকারী ছিলেন। আলেম সমাজে তিনি অত্যন্ত সজ্জন, মৃদুভাষী ও সহজ-সরল আলেমে-হাক্কানী হিসেবে সুপরিচিত ছিলেন। তাঁর ইন্তিকালে ইসলামী অঙ্গনে যে ক্ষতি হয়ে গেছে, তা সহজে পুরণ হবার নয়। তাঁকে হারিয়ে দেশের আলেম সমাজ ও ইসলামপ্রিয় তাওহিদী জনতা গভীরভাবে শোকাহত।

জমিয়ত মহাসচিব বলেন, এই আলেমে-দ্বীনের ইন্তেকালে আমি গভীরভাবে শোকাহত। আমি তাঁর মাগফিরাত কামনা করছি এবং শোকসন্তপ্ত পরিবার, আত্মীয়-স্বজন এবং অগণিত শগরীদ, মুতাআল্লিকীন ও শুভানুধ্যায়ীদের শ্রতি গভীর সমাবেদনা জানাচ্ছি। মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের শাহী দরবারে কায়মনোবাক্যে মুনাজাত করছি, তিনি যেন তাঁর এই প্রিয় মুখলিস আলেম বান্দাকে আপন রহমতের চাদরে আবৃত করে চিরস্থায়ী জান্নাতের মেহমান করে নেন; আমীন।

উল্লেখ্য, মাওলানা মুহাম্মদ ইদরিস (রাহ.) গতকাল বুধবার (২৭ মে) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টায় চট্টগ্রম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তিকাল করেন। তিনি ২০০২ইং সাল থেকে উত্তর চট্টগ্রামের বিখ্যাত নাজিরহাট বড় মাদ্রাসার পরিচালক ও শায়খুল হাদীসের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন।