ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | মুসলিম বিশ্ব ডেস্ক


আজাদ জম্মু ও কাশ্মীরের (এজেকে) আইনসভায় ভাষণ দিতে মুজাফফরাবাদে পৌঁছেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

এ বছর পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবসে কাশ্মীরিদের প্রতি সংহতি জানাতে দেশটির সরকারের নেয়া সিদ্ধান্তের অংশ হিসেবে তিনি এই ভাষণ দেবেন।

ইমরান খান মুজাফফরাবাদে পৌঁছালে তাকে গার্ড অব অনার দিয়ে স্বাগত জানান এজেকের প্রেসিডেন্ট সরদার মাসুদ খান এবং প্রধানমন্ত্রী রাজা ফারুক হায়দার।

রেডিও পাকিস্তানের বরাত দিয়ে গণমাধ্যমটি জানায়, স্পিকার শাহ গোলাম কাদিরের সভাপতিত্বে এক বিশেষ অধিবেশনে ভাষণ দেবেন পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী।

এছাড়া তিনি এজেকের অল পার্টিজ হুরিয়াত কনফারেন্সের (এপিএইচসি) নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন।

কাশ্মীরিদের সঙ্গে ঈদুল আজহা উদযাপন করতে রোববার রাতে আলাদাভাবে মুজাফফরাবাদে পৌঁছান পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি এবং পাকিস্তান পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান বিলাওয়াল ভুট্টো।

ভারতের ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টি অধিকৃত জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করার দুদিন পর পাকিস্তানের ন্যাশনাল সিকিউরিটি কমিটি (এনএসসি) এক বৈঠক করে। এই বৈঠকে পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবসটি কাশ্মীরিদের এবং তাদের জাতিগত আত্মনিয়ন্ত্রণের অধিকার আদায়ের ন্যায্য সংগ্রামের প্রতি উৎসর্গ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এছাড়া কাশ্মীরে ভারতের কারফিউ জারি, মানবাধিকার লঙ্ঘন এবং নৃশংসতার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে ১৫ আগস্ট দেশটির স্বাধীনতা দিবসকে কালো দিবস হিসেবে পালন করার সিদ্ধান্ত নেয় এনএসসি।

এদিকে মুজাফফরাবাদে ইমরান খানের সফর ঘিরে উদ্বিগ্ন ভারত। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ভাষণে কি বার্তা সেদিকেই তাকিয়ে আছে হিন্দুত্ববাদি মোদী সরকার।

উৎস, ডন