প্রশাসনের ২৪০ কর্মকর্তা করোনায় আক্রান্ত, মৃত্যু ১১ জনের

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সর্বশেষ গতকাল মারা গেলেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব আবদুল্লাহ আল মোহসীন চৌধুরী। এ নিয়ে করোনায় প্রশাসনের বর্তমান ও সাবেক মিলে ১১ জন কর্মকর্তার মৃত্যু হলো। এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ২৪০ জন কর্মকর্তা।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, করোনায় আক্রান্ত কর্মকর্তাদের মধ্যে প্রশাসন ও তথ্য ক্যাডারের তিনজন সচিবও রয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে মাঠ প্রশাসনে কর্মরত ১১৯ জন রয়েছেন।

বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও স্থানীয় সরকারসচিব হেলালুদ্দীন আহমদ সংবাদমাধ্যমকে বলেন, আমাদের এই সম্মুখযোদ্ধাদের করোনা সংক্রমণের তালিকা দীর্ঘ হচ্ছে, যা উদ্বেগজনক। যদিও মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের স্বাস্থ্যঝুঁকি হ্রাস এবং মনোবল ও আস্থা বাড়ানোর জন্য আমরা প্রতিনিয়ত চেষ্টা করছি। দুটি হাসপাতাল আক্রান্তদের চিকিৎসা দিচ্ছে।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন তথ্যসচিব কামরুন নাহার। এর আগে আক্রান্ত হয়েছিলেন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও পরিবারকল্যাণ বিভাগের সচিব মুহাম্মাদ আলী নূর। সুস্থ হয়ে গত রোববার থেকে তিনি অফিস করছেন।

আক্রান্তদের মধ্যে অতিরিক্ত সচিব থেকে শুরু করে সহকারী সচিব, জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার, সরকারি যানবাহন অধিদপ্তরের ব্যবস্থাপক, প্রকল্প পরিচালক, সহকারী পরিচালক রয়েছেন। মাঠপর্যায়ে ইউএনও ও সহকারী কমিশনারদের আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা বেশি আর সচিবালয়ে আক্রান্ত হয়েছেন মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও সচিবের একান্ত সচিবেরা।

বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের তথ্যানুযায়ী এ পর্যন্ত করোনায় ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। প্রতিরক্ষাসচিব ছাড়া অন্যরা হলেন দুর্নীতি দমন কমিশনের উপপরিচালক (উপসচিব) সাইফুর রহমান (৬ এপ্রিল), যুগ্ম সচিব ফখরুল কবীর (৯ জুন), অবসরপ্রাপ্ত যুগ্ম সচিব কিবরিয়া চৌধুরী (১ মে), অবসরপ্রাপ্ত যুগ্ম সচিব আ. রশিদ (১৪ মে), অতিরিক্ত সচিব গৌতম আইচ সরকার (৯ মে), অতিরিক্ত সচিব (পিআরএল) তৌফিকুল আলম (২২ মে), ইপিসিএস কর্মকর্তা মুহাম্মাদ আলী (২৩ মে), সাবেক যুগ্ম সচিব ইসহাক ভূঁইয়া (২৮ মে), অবসরপ্রাপ্ত সচিব বজলুল করিম চৌধুরী (৩১ মে), সাবেক যুগ্ম সচিব সরওয়ারী আলম (৬ জুন)।