একটি মসজিদই না, অস্তিত্বের জন্যই লড়ছি: বাবরি মসজিদ মামলার আইনজীবী

নভেম্বর ৯, ২০১৯


ভারতের সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ও সুন্নি কেন্দ্রীয় ওয়াকফ বোর্ডের প্রতিনিধি জাফরইয়াব জিলানি বলেছেন, কেবল একটি শহীদ বাবরি মসজিদই না, আমাদের ভবিষ্যত অস্তিত্বের জন্য লড়াই করে যাচ্ছি আমরা।

আজ শনিবার (৯ নভেম্বর) হাফিংটন পোস্ট ইন্ডিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেন।

জাফরইয়াব জিলানি বলেন, আমরা যদি আত্মসমর্পণ করি, তবে দেশের কোনো মসজিদই নিরাপদ থাকবে না, কোনো মুসলমানই নিরাপদ বোধ করবেন না।

তিনি আরও বলেন, আজকের রায়ে আমরা অসন্তুষ্ট। পরবর্তী করণীয় নিয়ে আমরা আলোচনা করবো। আমরা পুরো রায় পড়বো। তারপর সিদ্ধান্ত নেব রিভিউয়ের আবেদন করবো কিনা।

উল্লেখ্য, ১৫২৮ সালে মুঘল সম্রাট বাবরের সেনাপ্রধান মীর বাকী বাবরের নামানুসারে বাবরি মসজিদ নির্মাণ করেন। মসজিদটি মুসলিম বিশ্বের অন্যতম ঐতিহ্যের নিদর্শন। ১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর উগ্র হিন্দুত্ববাদী বিজেপি নেতারা ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টের আদেশ অনুযায়ী বাবরি মসজিদ ক্ষতিগ্রস্ত হবে না এই প্রতিশ্রুতি দিয়ে মসজিদ সংলগ্ন এলাকায় একটি রাজনৈতিক সমাবেশ করে। এরপর সেখানে পরিকল্পিতভাবে উগ্র হিন্দুত্ববাদী ও মুসলিম বিদ্ধেষী ১৫০,০০০ জনের সম্মিলিত একটি দল মসজিদটি সম্পূর্ণরূপে ভূমিসাৎ করে শহীদ করে।


বাবরি মসজিদের রায় নিয়ে যে প্রতিক্রিয়া জানালো দারুল উলুম দেওবন্দ

নভেম্বর ১০, ২০১৯ | জারিদ বিন ফারুক


বাবরি মসজিদ ইস্যুতে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে বিশ্ব বিখ্যাত দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দ।

দারুল উলূম দেওবন্দের মুহতামিম মাওলানা মুফতী আবুল কাসেম নোমানী বলেছেন, বাবরি মসজিদ সম্পর্কিত সুপ্রিম কোর্টের রায় আশ্চর্যজনক। মসজিদের পক্ষে এতো প্রমাণাদি থাকার পরেও এমন রায় কারণ বোধগম্য নয়। এছাড়াও মামলাটি মসজিদের জমির মালিকানার অধিকার নিয়ে ছিল। কিন্তু আদালত এই জমিটির মালিকানা কার, তা পরিষ্কার করেনি।

তিনি বলেন, জমির বিষয়ে আমরা বরাবার বলেছি যে মসজিদ আল্লাহর ঘর এবং মুসলমানরা মসজিদের জমির মালিক নয়। একবার কোন স্থানে মসজিদ নির্মিত হলে, সেটি পরিবর্তনের সুযোগ নেই।

মুফতী আবুল কাসেম নোমানী বলেন, আদালতের রায় মানা বা মানার বিষয়ে আমরা আলোচনা সাপেক্ষে সিদ্ধান্ত নেবো। এবং আগামিতে কি পদক্ষেপ নেয়া যেতে পারে, সে বিষয়েও আলাপ করবো।