বাসস্ট্যান্ডে ফেলে যাওয়া সেই ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত

ঢাকা থেকে রংপুরে যাওয়ার পথে বগুড়া বাসস্ট্যান্ডে ফেলে যাওয়া সেই ব্যক্তির শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি মিলেছে।

তবে চূড়ান্তভাবে নিশ্চিত হওয়ার জন্য আবার পরীক্ষা করা হবে বলে জানাগেছে।

গত রোববার ভোররাতে তাঁকে ট্রাক থেকে ফেলে যাওয়া হয়।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে ওই ব্যক্তি বগুড়ার মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন আছেন। তাঁর নমুনা পরীক্ষার জন্য গত বুধবার রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। তাঁর শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি আছে বলে পরের দিন বৃহস্পতিবার সংশ্লিষ্টদের মৌখিকভাবে জানানো হয়।

ওই ব্যক্তির সংস্পর্শ আসা শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হৃদরোগ বিভাগের প্রধানসহ পাঁচজন চিকিৎসক, আটজন নার্সসহ মোট ১৬ জনকে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ওই ব্যক্তির কাছ থেকে সবাইকে দূরে থাকার পরামর্শ দেয়।

জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে ঢাকা থেকে রংপুরে যাওয়ার পথে বগুড়া বাসস্ট্যান্ডে ট্রাক থেকে ফেলা যাওয়ার পর ওই ব্যক্তিকে প্রথমে শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখান থেকে পাঠানো হয় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। এখন তিনি মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের আইসোলেশনে আছেন।

জানাগেছে, রাজধানীর কারওয়ানবাজারে সবজির আড়তে কাজ করেন ৫০ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি। গত শনিবার রাতে ট্রাকে করে রংপুরের উদ্দেশে ঢাকা থেকে রওনা দেন তিনি। ট্রাকে আরও ১৫ থেকে ২০ জন যাত্রী ছিলেন। পথে তাঁর শ্বাসকষ্ট ও কাশি বেড়ে যায়। তখন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে ট্রাক থেকে তাঁকে বগুড়ার শিবগঞ্জের মহাস্থান বাসস্ট্যান্ডে ফেলে যাওয়া হয়। পরে পুলিশের সহায়তায় একজন ভ্যানচালককে ডেকে তাঁর ভ্যানে তুলে হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা হয়।

Previous post ৮৭ হাজার কোটি টাকার 'বিশেষ তহবিল' ঘোষণা করতে সরকারের প্রতি বিএনপির আহ্বান
Next post প্রথমবারের মতো মাইকে আজানের অনুমতি দিল জার্মানি