বেশিরভাগ পশ্চিমা সংবাদমাধ্যম ইহুদিবাদী লবিগুলোর মাধ্যমে প্রভাবিত

ইতালিতে সক্রিয় ফিলিস্তিনি মুক্তি আন্দোলনের সমর্থক একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার এক নেতা বলেছেন, পশ্চিমা সংবাদ ও প্রচার মাধ্যমগুলো মজলুম ফিলিস্তিনিদের পক্ষে কথা না বলে তাদের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রচার করছে।

মিশেলে বুরজিয়া নামের এই নেতা এ বিষয়ে গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি মুসলমানদের প্রথম কিবলা আলআকসা মসজিদ অঞ্চলের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি তুলে ধরে (আমাদের ইতালিয় ভাষার বেতারকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে) বলেছেন, পশ্চিমা প্রচারমাধ্যমগুলো ফিলিস্তিনিদের বিষয়ে বিদ্বেষ নিয়ে খবর প্রচার করছে এবং ইহুদিবাদী দখলদারদের অপরাধযজ্ঞ ধামাচাপা দিচ্ছে।

ফিলিস্তিন মুক্তির নৌ-বহর শীর্ষক সংস্থার সমন্বয়কারী এই নেতা বলেছেন, পশ্চিমা সংবাদমাধ্যমগুলো সব সময়ের মতো এখনও ইহুদিবাদী ইসরাইলের পক্ষ নিয়ে ভুল ও বাস্তবতার ঠিক বিপরীত তথ্য প্রচার করছে।

মিশেলে বুরজিয়া আরও বলেছেন, আল-আকসা মসজিদসহ নানা ক্ষেত্রে ইহুদিবাদী দখলদার সেনারা ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে সহিংস আচরণ চালিয়ে যাচ্ছে।

ফিলিস্তিনিদের ন্যায্য অধিকারের সমর্থক এই নেতা বলেছেন, বেশিরভাগ পশ্চিমা সংবাদমাধ্যম ইহুদিবাদী লবিগুলোর মাধ্যমে প্রভাবিত। আর তাই ইসরাইলি শাসকগোষ্ঠীর ক্ষতি হয় এমন সংবাদ ও ইসরাইল সম্পর্কে সঠিক তথ্য তারা কখনও প্রচার করে না।

তিনি আরও বলেছেন, মজলুম ফিলিস্তিনি জনগণের পক্ষে আন্তর্জাতিক সমাজের প্রকৃত সাহায্য-সমর্থন না আসা পর্যন্ত ও ইসরাইলকে দখলদার হিসেবে নিন্দা না করা পর্যন্ত এই শাসকগোষ্ঠীর অমানবিক আচরণ অব্যাহত থাকবে।

দখলদার ইহুদিবাদী সেনারা গত ১৪ জুলাই থেকে ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুর নির্দেশে নানা অঞ্চলের ফিলিস্তিনিদের ওপর এবং বিশেষ করে আলআকসা মসজিদ ও বায়তুল মুকাদ্দাস অঞ্চলে ফিলিস্তিনিদের ওপর নৃশংস দমন-পীড়ন জোরদার করেছে। এইসব দমন-পীড়নে শত শত ফিলিস্তিনি শহীদ ও আরও বেশি সংখ্যক আহত হয়েছে।

পার্সটুডে