ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | আন্তর্জাতিক ডেস্ক


গত জুন মাসের ভারতের ঝাড়খণ্ডের খারসাওন এলাকায় উগ্র হিন্দুত্ববাদীরা পিটিয়ে হত্যা করেছিল মুসলিম যুবক তাবরেজ আনসারিকে। সেই ঘটনার ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে সারা বিশ্বে হিন্দুত্ববাদীরদের ভয়ঙ্কর চেহারা প্রকাশ পেয়ে যায়। হত্যার সময় তাবরেজ আনসারিকে হিন্দুত্ববাদীরা জয় শ্রীরাম স্লোগান দিতেও বাধ্য করে।

জুনের ১৮ তারিখ তাবরেজ আনসারিকে ঘণ্টার ঘণ্টা পিটিয়ে রক্তাত করে হিন্দু সন্ত্রাসীরা। পরে হাসপাতালে নিয়ে গেলে ২২ তারিখ সেখানে মারা যায় তাবরেজ আনসারি। পরিবার জানিয়েছিল  তাবরেজের মাথা থেঁতলে দিয়েছিল হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসীরা। এতেই তার মৃত্যু হয়।

তবে হিন্দুত্ববাদী ভারত যেন তাবরেজের খুনিদের পক্ষেই অবস্থান নিয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্টে বলা হয়েছে, পণপিটুনি নয়, হার্ট অ্যাটাকে মারা গিয়েছিলেন তাবরেজ!

আর সেই রিপোর্টের ভিত্তিতেই খুনিদের উপর থেকে হত্যার অভিযোগ তুলে নেওয়া হয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে ঝাড়খণ্ডের পুলিশকর্তা কার্তিক এস বলেন, ‘‘মেডিক্যাল রিপোর্টে হত্যার স্বপক্ষে কোনও প্রমাণ মেলেনি। যার ফলে আমরা হত্যা কেন, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে অনিচ্ছাকৃত হত্যার মামলাও চালাতে পারব না। হত্যার মতো অনিচ্ছাকৃত হত্যাও শাস্তিযোগ্য অপরাধ।’’

তাবরেজ হত্যার সাথে যুক্ত থাকার দায়ে প্রাথমিক ভাবে ১১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। পরে এক জন আত্মসমর্পণ করেন।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা