মসজিদ উন্মুক্তের বিষয়ে সকল ওলামায়ে কেরাম ঐক্যমত

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | বিশেষ প্রতিনিধি


করোনা ইস্যুতে সরকার কর্তৃক মসজিদে মুসল্লী সংখ্যা সীমাবদ্ধ করার পর সরকার, স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয় ও বিজ্ঞ চিকিৎসকদের দিকনির্দেশনা মেনে সচেতনতা বজায় রেখে জুমার নামায, পাঁচ ওয়াক্ত নামায, তারাবীর নামায ও ই’তেকাফ নির্বিঘ্ন করতে মসজিদ খুলে দেওয়ার জন্য সর্বপ্রথম গত ৮ এপ্রিল গণমাধ্যমে বিবৃতি দিয়েছিলেন চট্টগ্রাম বাবুনগর মাদরাসার মহাপরিচালক আল্লামা শাহ মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী, দারুল উলূম হাটহাজারীর সহকারি পরিচালক আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী ও হাটহাজারী মাদরাসার প্রধান মুফতী আল্লামা মুফতী আব্দুস সালাম চাটগামী, আল্লামা নূর হুসাইন কাসেমী, আল্লামা আতাউল্লাহ হাফেজ্জী সহ বাংলাদেশের শীর্ষ ১৫ জন ওলামায়ে কেরাম।

বিবৃতিতে বলা হয়েছিল, বাস্তবে যারা করোনায় আক্রান্ত হয়েছে তারা মসজিদে আসবে না। বাকি যারা সুস্থ মুসল্লী আছেন তারা সতর্কতা ও স্বাস্থ্য সচেতনতা বজায় রেখে মসজিদে নামায পড়বেন ।

পরবর্তীতে ১৫ শীর্ষ আলেমের বিবৃতির প্রতি সমর্থনকারী জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছিলেন, শায়খুল হাদিস মাওলানা নুরুল ইসলাম (আদীব সাহেব হুজুর), মধুপুর পীর মাওলানা আব্দুল হামিদ, মাখজানুল উলুমের মাওলানা নুরুল ইসলাম সহ বাংলাদেশের আরো শীর্ষ ৭০ জন আলেম।

গত ১৮ এপ্রিল বৃহস্পতিবার ঐ শীর্ষ ১৫ জন আলেমের বিবৃতির সমর্থনে বিবৃতি দিয়েছিলেন, মুফতী মাওলানা মুহিবুল হক গাছবাড়ি, মুফতী মাওলানা রশিদুর রহমান ফারুক বর্ণভী, মুফতী মাওলানা আলিম উদ্দিন দুর্লভপুরি, মুফতী মাওলানা নুরুল ইসলাম খান সুনামগঞ্জী প্রমূখ সহ সিলেটের ৩১৩ জন শীর্ষ আলেম।

সর্বশেষ গতকাল ২১ এপ্রিল আল্লামা শাহ আহমদ শফী’র নেতৃত্বে আল্লামা নুর হুসাইন কাসেমী, মুফতী মুহাম্মদ ওয়াক্কাস, মাওলানা আব্দুল হামিদ পীর সাহেবমধুপুর সহ প্রমূখ শীর্ষ ওলামায়ে কেরাম মসজিদ খুলে দিতে সরকারের প্রতি আহবান করেছেন।

গত ১৭ এপ্রিল দারুল উলুম হাটহাজারী মাদরাসার কেন্দ্রীয় বায়তুল করীম জামে মসজিদে আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেছিলেন,মাহে রমজানে মসজিদে জামাত সহকারে জুমা, পাঞ্জেগানা, তারাবীর নামায এবং ই’তেকাফ চলবে। এবং সকলকে সরকার, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও অভিজ্ঞ চিকিৎসকদের দিকনির্দেশনা মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছিলেন তিনি।