মসজিদ উন্মুক্ত করে দেয়ার দাবী ইসলামী নেতৃবৃন্দ ও শীর্ষ আলেমদের

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


মসজিদে মুসল্লীদের সংখ্যা নির্ধারণ, বিভিন্ন স্থানে মসজিদে তালা লাগানো, ইমাম-মুআজ্জিন ও মুসল্লীদের হয়রানি বন্ধ এবং মসজিদ উন্মুক্ত করে দেয়ার পক্ষে বিবৃতি দিয়েছেন বিভিন্ন ইসলামী দলের নেতৃবৃন্দ ও দেশের বিশিষ্ট ওলামায়ে কেরাম।

গত ৮ এপ্রিল গণমাধ্যমে দেয়া বাংলাদেশের শীর্ষ ১৫ জন আলেমের বিবৃতির প্রতি সমর্থন জানিয়ে আল্লাহর ঘর মসজিদ উন্মুক্ত করে দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানিয়েছেন তাঁরা।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, জুমা ও পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ ও তারাবিহের জন্য মুসল্লিদের সংখ্যার শর্ত তুলে দিয়ে স্বল্প সময়ে মসজিদে জামাতে নামাজ আদায়ের সুযোগ করে দেয়া ধর্মপ্রান মানুষের ঈমানের দাবী। মুসল্লীদের মসজিদে উপস্থিতির ব্যাপারে কঠোরতা আরোপ ও সংখ্যা নির্ধারণ মেনে নেয়া যায় না। বিবৃতিতে তাঁরা আরো বলেন, যেহেতু সংখ্যা নির্ধারণ ছাড়া হাট-বাজার, ব্যাংক ইত্যাদি খোলা আছে, তাই মহামারী থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য ও আল্লাহর রহমতের আশায় শর্তহীনভাবে সুস্থ মানুষের জন্য মসজিদ উন্মুক্ত রাখাই যুক্তিযুক্ত ও সময়ের দাবী। নেতৃবৃন্দ শীর্ষস্থানীয় ওলামায়ে কেরাম ও মুসলিম জনতার ঈমানের দাবীর প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে মসজিদ খুলে দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান।

করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তির জন্য আল্লাহর কাছে খালেস দিলে তাওবা-এস্তেগফার, নামাজ-রোজা, দোয়ায়ে ইউনুসসহ অন্যান্য দোয়া অব্যাহত রেখে সবধরনের পাপ কাজ থেকে বিরত থাকার পাশাপাশি সরকারের দেয়া স্বাস্থ্যবিধিও মেনে চলার জন্য তাঁরা সকলের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

বিবৃতি দাতাগণ হলেন, শায়খুল হাদিস মাওলানা মুনিরুজ্জামান সিরাজী (বড় হুজুর) ব্রাক্ষণবাড়িয়া। মাওলানা শাহ মোহাম্মদ তৈয়্যব, মহাপরিচালক, জিরি মাদরাসা চট্রগ্রাম। মাওলানা সারোয়ার কামাল আজিজী, সভাপতি নেজামে ইসলাাম পার্টি। ড. মাওলানা মোহাম্মদ ঈসা শাহেদী, আমীর ইসলামী ঐক্য আন্দোলন। মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী, সহসভাপতি জমিয়তে ওলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ। মাওলানা জুনায়েদ আল-হাবিব, যুগ্ম মহাসচিব হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ। মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, নায়েবে আমীর বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন। মাওলানা খোরশেদ আলম কাসেমী, নায়েবে আমীর বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস। মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইন, নায়েবে আমীর খেলাফত মজলিস, মুফতি সাখাওয়াত হুসাইন রাজী। মাওলানা মহিউদ্দিন রাব্বানী, সভাপতি বাংলাদেশ আইম্মা পরিষদ। মাওলানা জয়নুল আবেদীন, প্রিন্সিপাল চরিতাবাড়ী মাদরাসা লালমনিরহাট। মুফতি সুলতান মহিউদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন। মুফতি আব্দুল আজীজ, হাটহাজারী। মাওলানা এনামুল হক মুসা, সভাপতি সচেতন ওলামা সমাজ। মাওলানা সাজেদুর রহমান ফয়েজী, সভাপতি ইমাম ও ওলামা পরিষদ। মুফতি ইলিয়াস মাদারীপুরী, সভাপতি জাতীয় ইমাম সমাজ কামরাঙ্গীরচর। মুফতি আবুল কালাম, প্রিন্সিপাল, দারুল উলূম মিরপুর-৬। মাওলানা মীর ইদরীস, প্রিন্সিপাল দারুল হুদা, চট্রগ্রাম। মুফতি সামসুদ্দিন বড়াইলী, মারকাজুল হুদা ঢাকা। মুফতি আখতারুজ্জামান, প্রধান মুফতি দারুল উলুম মাহমুদিয়া ঢাকা। মাওলানা আশরাফুজ্জামান পাহাড়পুরী, মুহতামিম, হাজারীবাগ মাদরাসা ঢাকা। মাওলানা আহসান উল্লাহ, প্রিন্সিপাল মাহফুজুল কোরআন মাদরাসা, ঢাকা। মাওলানা মুফতি রেজাউল করিম, সেক্রটারী বৃহত্তর কুষ্টিয়া ওলামা পরিষদ। মুফতি আব্দুল বারী, প্রধান মুফতি মদিনাতুল উলুম আমীনবাজার ঢাকা।