মুসলিম দেশ হওয়া সত্বেও ইসরাইলকে সমর্থন দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে সুদান, বিনিময়ে কি পাচ্ছে?

ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২০ | সাঈদ মুহাম্মাদ



মাত্র দুইদিন আগে আরব দেশগুলোর সাথে বৈঠকে ট্রাম্পের ডিল অব সেঞ্চুরী প্রত্যাখান করেছিল সুদান। কিন্তু ঠিক দুইদিনের মাথায় উগান্ডায় ইহুদিবাদী সন্ত্রাসীদের অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু’র সাথে এক বৈঠকে মিলিত হওয়ার পর সম্পূর্ণ ভিন্ন কথা বলছেন সুদানের সার্বভৌম কাউন্সিলের প্রধান আবদুল ফাত্তাহ বুরহান।

গত ৩ ফেব্রুয়ারী এক টুইটে নেতানিয়াহু জানান, ইসরায়েলের সাথে পারস্পরিক সহযোগিতা চুক্তিতে সম্মত হয়েছে সুদান। নেতানিয়াহু জানান, এটা দুই দেশের সম্পর্ককে স্বাভাবিক করতে সহযোগিতা করবে।

ওয়াশিংটন পোস্ট উল্লেখ করেছে “সন্ত্রাসবাদে সহযোগিতাকারী” রাষ্ট্র তালিকা থেকে সুদানের নাম বাদ দেওয়া হবে এমন প্রস্তাব দিলে ইহুদিবাদী সন্ত্রাসীদের অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলকে সহযোগিতা করতে রাজি হয়ে যায় সুদান।

কিছুদিন আগে নেতানিয়াহু জানিয়েছিলেন, আরব দেশগুলোর সাথে ইসরায়েলের সম্পর্ক অনেক ভালো বরং তিনি দাবী করেছিলেন আরব জনগণের সাথেও তাদের সম্পর্ক ভালো।

১০ নভেম্বর, ২০১৯ এক সাক্ষাতকারে নেতানিয়াহু বলেছিলেন, অন্তত ছয়টি আরব দেশ তাদের সাথে আছে।

গত ২৮ জানুয়ারি, ট্রাম্পের ডিল অব সেঞ্চুরির ঘোষণা আসার পর মুসলিম বিশ্বের উদ্বেগের মধ্যেও আরব-আমিরাত, সউদি আরব ও মিশর ট্রাম্পের এই ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়েছিলো।

হোয়াইট হাউজে একটি বক্তব্যে ডিল অব সেঞ্চুরি সফল করতে অসাধারণ ভূমিকা রাখার জন্য ওমান, বাহরাইন ও আরব-আমিরাতের প্রচেষ্টাকে সাধুবাদ জানান ডোনাল্ড ট্রাম্প।

জনগণের তীব্র অসন্তোষ ও বিশ্বাঘাতক তকমা লেগে যাওয়ার ঝুকির মধ্যেও ইহুদিবাদী সন্ত্রাসীদের অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলকে সমর্থনকারী আরব দেশগুলোর তালিকায় এবার নাম লেখাচ্ছে সুদান।

সূত্র: টিআরটি