শায়েখে ইমামবাড়ি’র জানাযা ও দাফন সম্পন্ন: জমিয়ত নেতৃবৃন্দের অংশগ্রহণ

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | ডেস্ক রিপোর্ট


জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ’র সভাপতি খলীফায়ে মাদানী আল্লামা আবদুল মোমিন শায়েখে ইমামবাড়ি গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টায় বার্ধক্যজণিত অসুস্থতায় নিজ বাসভবনে ইন্তিকাল করেছেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিঊন।

আজ (বুধবার) বেলা পৌনে ২টায় হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার ইমামবাড়ির পুরানগাঁওয়ে নামাযে জানাযা শেষে মরহুমকে নিজ গ্রামের কবরস্থানে দাফন করা হয়।

জানাযা ও দাফনে দলের মহাসচিব আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী, সহসভাপতি মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী, মাওলানা উবায়দুল্লাহ ফারুক, মাওলানা জুনায়েদ আল-হাবীব, এডভোকেট মাওলানা শাহীনুর পাশা চৌধুরী, যুগ্মহাসচিব মাওলানা ফজলুল করীম কাসেমী, মুফতি মনির হোসাইন কাসেমী, সাংগঠনিক সম্পাদক হাফেজ মাওলানা নাজমুল হাসান, মহানগর সহসভাপতি মুফতি মকবুল হোসাইন কাসেমী, কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা সিদ্দিকুল ইসলাম তোফায়েল, যুবজমিয়তের সভাপতি মাওলানা তাফহিমুল হক ও সেক্রেটারী মাওলানা ইসহাক কামাল এবং ছাত্র জমিয়তের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাওলানা ইখলাসুর রহমান ও সেক্রেটারী হুজায়ফা ইবনে ওমর’সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ শরীক ছিলেন।

করোনা পরিস্থিতির কারণে প্রশাসনিক কঠোর বাঁধা সত্ত্বেও নামাযে জানাযায় হাজার হাজার তাওহিদী জনতা শারীরিক স্পর্শের দূরত্বে দাঁড়িয়ে শরীক হন। জানাযার নামাযে ইমামতি করেন শায়েখে ইমামবাড়ির সাহেবজাদা মাওলানা ইমদাদ।

দেশব্যাপী লকডাউন পরিস্থিতির কারণে ভক্তবৃন্দের ব্যাপক উপস্থিতি ও ভীড় এড়াতে প্রশাসনিক অনুরোধে নির্ধারিত সময়ের প্রায় এক ঘণ্টা আগে নামাযে জানাযা সম্পন্ন হয়। যে কারণে দলের অসংখ্য নেতাকর্মী, ভক্ত ও শাগরীদ জানাযায় শরীক হতে পারেননি।

শায়েখে ইমামবাড়ির ইন্তিকালে জমিয়ত মহাসচিব মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী’সহ মূল দলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ এবং অঙ্গসংগঠন যুব জমিয়ত ও ছাত্র জমিয়ত নেতৃবৃন্দ গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করে গণমাধ্যমে বার্তা দিয়েছেন। হেফাজত আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফী, মহাসচিব আল্লামা হাফেজ জুনায়েদ বাবুনগরী’সহ দেশবরেণ্য বহু উলাময়ে কেরাম শোকবার্তা দিয়ে মরহুম শায়েখে ইমামবাড়ির পরিবারের শোকসন্তুপ্ত সদস্যবর্গের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেছেন।

উল্লেখ্য, আল্লামা আব্দুল মোমিন শায়েখে ইমামবাড়ি ২০০০ সালে প্রাচীন ইসলামী রাজনৈতিক দল জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ’র কেন্দ্রীয় পৃষ্ঠপোষক নির্বাচিত হন। ২০০৫ সাতে তৎকালীন দলের সভাপতি মাওলানা আশরাফ আলী বিশ্বনাথীর ইন্তিকালের পর তাঁকে সভাপতি নির্বাচিত করা হয়। তিনি মৃত্যুর আগ পর্যন্ত দলের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন।

মরহুম ইমামবাড়ি (রাহ.)এর ইন্তিকালের সময় বয়স হয়েছিল ৯৯ বছর। তিনি ৪ পুত্র ও ২ কন্যা এবং স্ত্রীকে রেখে যান।

Previous post 'করোনাভাইরাস বরিসের প্রাপ্য ছিল', এমন মন্তব্য করে বহিস্কার মেয়র
Next post জমিয়তের সভাপতির ইন্তেকালে জাতি একজন নক্ষত্রতুল্য রাহবারকে হারালো : আল্লামা আতাউল্লাহ