ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি


বাংলাদেশি হজ্বযাত্রীদের হজ্ব পালন বিষয়ে ধর্মীয় ও বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ দিতে আলেম-উলামাদের একটি দল সরকারী খরচে সৌদি আরব যাচ্ছেন।

গতকাল ৯ জুলাই ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব শিব্বির আহমদ উছমানি স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ কথা জানানো হয়।

যারা যাচ্ছেন-
বেফাকের সিনিয়র সহসভাপতি ও আল হাইআতুল উলয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়ার কো চেয়ারম্যান মাওলানা আশরাফ আলী, চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী জামেয়া আরাবিয়া জিরি মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা শাহ মুহাম্মদ তৈয়ব, জামিয়া ইসলামিয়া পটিয়ার মুহতামিম মাওলানা আব্দুল হালিম বোখারী, বেফাকের মহাসচিব ও ফরিদাবাদ মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস, শোলাকিয়া ঈদগাহের ইমাম মাওলানা ফরিদ উদ্দীন মাসউদ, ঢালকানগরের পীর মাওলানা জাফর আহমদ, মুফতী মিজানুর রহমান সাঈদ, গহরডাঙ্গা মাদরাসার মুওহতামিম মুফতী রুহুল আমীন, মুফতী ইয়াহইয়া মাহমুদ, নানুপুর উবায়দিয়া মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা সালাউদ্দীন নানুপুরী, মুফতী দিলাওয়ার হোসেন, ইসলামী আন্দোলনের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও চরমোনাই আলিয়া মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল মাদানী, আল্লামা শাহ আহমদ শফীর পুত্র মাওলানা আনাস মাদানী, আফতাবনগর মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা মোহাম্মদ আলী, ইসলামী আন্দোলনের যুগ্মমহাসচিব মুফতী নেয়ামত উল্লাহ আল ফরিদী, বড় কাটারা মাদরাসার মুহতামিম মুফতী সাইফুল ইসলাম, সিলেটের গহরপুর মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা মুসলেহ উদ্দীন রাজু, মুফতী রুহুল আমীনের পুত্র মাওলানা ওসামা আমীন, মাওলানা ফরিদ উদ্দীন মাসউদের পুত্র মাওলানা সদরুদ্দীন মাকনুন প্রমুখ।

রাষ্ট্রীয় খরচে হজ্বযাত্রীদের প্যাকেজের বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা প্রদান সাপেক্ষে এই প্রথমবারের মতো দেশের ওলামা মাশায়েখদেরকে হজ্ব পালনে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।

সূত্র জানায়, আগামী ৪ ও ৫ আগস্ট ফ্লাইট প্রাপ্তি সাপেক্ষে ওলামা মাশায়েখদের দলটি সৌদি আরবে যাবেন। ২৩ আগস্ট তারা দেশে ফিরে আসবেন।


এক হাজার ফিলিস্তিনিকে ফ্রি হজ্ব করানোর ঘোষণা বাদশাহ সালমানের

জুলা ৯, ২০১৯
ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | বেলায়েত হুসাইন


এক হাজার ফিলিস্তিনিকে এ বছর ফ্রি-হজ্ব করানোর ঘোষণা দিয়েছেন সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ। বিভিন্ন সময়ে ইসরাইলী বাহিনীর হামলায় শহীদ হওয়া ফিলিস্তিনিদের আত্মীয়রাই চলতি বছরের ফ্রি-হজ্ব পালনের এই সুযোগের আওতার অন্তর্ভুক্ত হবেন।

সোমবার (৮ জুলাই) সৌদির রাষ্ট্রীয় সংবাদসংস্থা ওয়াস এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে।

এ বিষয়ের এক বিবৃতিতে সৌদিআরবের ধর্মমন্ত্রী জানিয়েছেন, বাদশাহর নির্দেশনা কার্যকর করতে খুব শিগগির বিভিন্ন এজেন্সির সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করা হবে।

মন্ত্রী জানান, এছাড়াও হজ্ব যাত্রীগণ যেন খুব স্বাচ্ছন্দ্যে এবং সহজভাবে সৌদিতে পৌঁছতে পারেন এজন্য মিসর, জর্ডানসহ অন্যান্য দেশের দূতাবাসের সঙ্গে কাজ করছে সৌদি আরব। সৌদিতে তারা যেন কোন হয়রানি ছাড়াই পৌঁছতে পারেন সেজন্য বিশেষ বিমানেরও ব্যবস্থা রাখা হয়েছে হাজ্বীদের জন্য।

বিভিন্ন দেশ থেকে সৌদির রাষ্ট্রীয় মেহমান হয়ে অন্ততপক্ষে ১৭ হাজার নারীপুরুষ এ বছর ফ্রি-হজ্বের সুযোগ পাচ্ছেন।