‘সালমান রুশদি ঈর্ষাকাতর, লোভী ও কামুক’

মার্চ ৭, ২০১৬

7631050872_c003c7644e_bবিতর্কিত লেখক সালমান রুশদির সাবেক স্ত্রী পদ্ম লক্ষ্ণী সম্প্রতি প্রকাশিত তার আত্মজীবনীতে সাবেক স্বামী সম্পর্কে বিষ্ফোরক মন্তব্য করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘সালমান রুশদি ঈর্ষাকাতর, লোভী ও কামুক’।

তিনি আরো বলেন, প্রত্যেক বছর সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার জিততে ব্যর্থ হওয়ার পরে রুশদিকে প্রবোধ দিতে তার অনেক বেগ পেতে হত এবং শুধুমাত্র ঈর্ষা ও নিরাপত্তাহীনতার জন্যই রুশদির ঘর ছাড়তে বাধ্য হয়েছিলেন তিনি।

পদ্ম লক্ষ্ণী অভিযোগ করেন, রুশদির বিকৃত যৌন লিপ্সা পূরণে অপারগতা প্রকাশ করায় তাকে বিয়ে করাকে ‘বাজে বিনিয়োগ’ বলে আখ্যা দিয়েছিলেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত এই বিতর্কিত লেখক।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত আমেরিকান মডেল ও টিভি উপস্থাপক লক্ষ্ণী ‘স্যাটানিক ভার্সেসে’র লেখক রুশদির সাথে তার ৩ বছরের দাম্পত্য জীবনের অনেক অজানা কাহিনী প্রকাশ করেন বইটিতে। ৪৫ বছর বয়সী লক্ষ্ণীর আলোচিত আত্মজীবনীটি গত মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রে প্রকাশিত হয়েছে।

আত্মজীবনীতে লক্ষ্ণী জানান, ১৯৯৯ সালে ৫১ বছর বয়সী সালমান রুশদির সাথে যখন সাক্ষাৎ হয় তখন তার বয়স ছিল ২৮ এবং তিনি একা থাকতেন। আর ওই সময় রুশদি মাত্রই তার তৃতীয় বিয়ে সম্পন্ন করেছিলেন।

তারা ২০০৪ সালে বিয়ে করেন এবং লন্ডন ও নিউইয়র্কে সমানভাবে বসবাস করতেন। নিউইয়র্কে রুশদির দুই সন্তান বসবাস করতো।

বিয়ের প্রথম কিছুদিন সবকিছু ঠিকঠাক চললেও ক্রমেই তাদের মধ্যে তিক্ততা বাড়তে থাকে। রুশদির অদ্ভূত যৌন আচরণ ও মারাত্মক বাক্যবাণে লক্ষ্ণীর জীবন অল্পদিনেই অতিষ্ট হয়ে ওঠে। বিয়ের ৩ বছরের মাথায় ডিভোর্সের মাধ্যমে তাদের সম্পর্কের অবসান ঘটে।

বর্তমানে লক্ষ্ণী বিলিয়নিয়ার ব্যবসায়ী অ্যাডাম ডেলের ঘর করছেন এবং সেখানে তার ৬ বছর বয়সী একটি মেয়ে রয়েছে।

অন্যদিকে, ইসলাম বিদ্বেষী লেখনীর জন্য ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা কর্তৃক মৃত্যদণ্ড প্রাপ্ত বিতর্কিত লেখক সালমান রুশদি বর্তমানে নিউইয়র্কে বসবাস করছেন।

সদ্য অনুষ্ঠিত অস্কার পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে এক উঠতি মডেলকে সাথে নিয়ে হাজির হয়েছিলেন এই লেখক।

সূত্র: টেলিগ্রাফ