সিলেটে মাওলানা সাদ অনুসারিদের ইজতেমা বন্ধের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি ঘোষণা

ফেব্রুয়ারি ৬, ২০২০ | নিজস্ব প্রতিনিধি



প্রশাসন ও আলেমদের সাথে অঙ্গীকার ভঙ্গ করে প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে সিলেটে জেলা ইজতেমা শুরু করায় ভারতের মাওলানা সাদ অনুসারীদের ইজতেমা বন্ধ করতে অবস্থান কর্মসূচি ঘোষণা করেছে জেলার সাধারণ আলেম সমাজ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দাওয়াতে তাবলীগের উভয় গ্রুপের সাথে আলোচনার পর একদিনের জন্য দুআ মাহফিলের অনুমতি প্রদান করে প্রশাসন। মাওলানা সাদ অনুসারীরা দুআ মাহফিলের অনুমতি নিয়ে সেখানে অনৈতিকভাবে ইজতেমা ঘোষণা করে। আজ বৃহস্পতিবার (৬ ফেব্রুয়ারি) বাদ মাগরিব তাদের বিভিন্ন ফেসবুক আইডি থেকে ইজতেমার ঘোষণা, নিউজ এবং “আব্দুল্লাহ শাকিল” নামক আইডি থেকে ওয়াসিফুল ইসলামের উদ্বোধনী বয়ানের অডিও লাইভ প্রচার করা হয়। মাওলানা সাদ অনুসারীদের ইজতেমার খবর ছড়িয়ে পড়লে সিলেটের আলেম সমাজ ও তাওয়াতে তাবলীগের সাথীদের মাঝে চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

সার্বিক পরিস্থিতিকে সামনে নিয়ে তাৎক্ষনিকভাবে বাদ এশা সিলেটের মারকাজ খোজারখলায় মদীনাতুল উলূম দারুসসালাম মাদরাসার মুহতামিম ও জেলা উপদেষ্টা মাওলানা ওলীউর রহমানের সভাপতিত্বে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে জেলার যিম্মাদার সাথী ও বিভিন্ন মাদরাসার দায়িত্বশীলগণ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় সর্বসম্মতিক্রমে সিলেটের আলেম-উলামা ও প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে সিলেটের বদিকোনায় মাওলানা সাদ অনুসারী তাবলীগ জামাতের তথাকথিত জেলা ইজতেমা বন্ধের দাবীতে আগামীকাল ৭ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার সকাল ১০টায় দক্ষিণ সুরমার চন্ডিপুল পয়েন্টে সিলেটের আলেম-উলামা ও সুরা অনুসারি দাওয়াতে তাবলীগের সাধারণ সাথীদের আহবানে অবস্থান কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। শান্তিপূর্ণ এ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করার জন্য সর্বস্তরের মুসল্লিদের উপস্থিত কামনা করেছেন সিলেটের আলেম সমাজ ও তাবলীগের সাথীবৃন্দ।

কর্মসূচির সত্যতা জানতে দক্ষিণ সুরমার আঞ্জুমান কমপ্লেক্স মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা ইমদাদুল হকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ইনসাফকে জানান, এমন কর্মসূচি সম্পর্কে আমি অবগত হয়েছি। স্থানীয় প্রশাসন এ বিষয়ে শান্তিপূর্ণ সমাধানের উদ্যোগ নিয়েছে। জানা গেছে প্রশাসন ইজতেমা বন্ধরও উদ্যোগ নিয়েছে। যদি তাই হয় তবে সিলেটের শান্ত পরিবেশকে অশান্ত করার সুযোগ নেই । এজাতীয় কর্মসূচিরও প্রয়োজন নেই। কিন্তু প্রশাসনের দ্বিমুখী মনোভাব ও আলেম উলামাদের প্রতি অবজ্ঞা প্রদর্শন করলে নাগরিক অধিকার হিসেবে আন্দোলনী কর্মসূচি নেওয়ার অধিকার রাখে। আশাকরি একটি সুন্দর সমাধান আসবে।

এদিকে, মাওলানা সাদ অনুসারীর ইজতেমার নেতা সুয়েজ আফজল খানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, আমরা দুআ মাহফিলের আয়োজন করেছি। কাল রাত বাদ এশা দুআর মাধ্যমে মাহফিল সমাপ্ত হবে। ইজতেমার বিষয়টি সামনে আনলে তিনি বলেন, এটা ইজতেমার মতোই। এতে অনেকটা ইজতেমার তাকাযা পূরণ করে আমরা সাথীদের দুআর পর ছেড়ে দেবো।