সৌদি পত্রিকায় ‘ইসরাইলের দাদী’র উচ্চকিত প্রশংসা; সামাজিক মাধ্যমে সমালোচনার ঝড়

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | আরিফ মুসতাহসান


সৌদি সংবাদমাধ্যম ‘আল জাজিরা’তে (সৌদি আরবের একটি জাতীয় দৈনিক) সাহাম আল কাহতানির লিখিত একটি কলাম প্রকাশিত হয়েছে, যেখানে ইহুদিবাদী ইসরাইলের অন্যতম প্রধান জাতীয় নেত্রী ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী ‘ইসরাইলের দাদী’ খ্যাত গোল্ডা মেয়ারের জন্মদিন উদযাপন করে প্রশংসা করা হয়। এতে তার মুসলমানদের উপর চালানো কোনো অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের উল্লেখ্য ছাড়াই তাকে সম্মানিত নারী নেত্রী হিসেবে উপস্থাপন করা হয়েছে।

এখানে উল্লেখ্য, গোল্ডা মেয়ার যিনি ১৯৪৮ সালে জায়েনাবাদের পক্ষে ফিলিস্তিনে গণহত্যা চালানোর জন্য আমেরিকায় ইহুদিদের থেকে প্রায় ৫০০ মিলিয়ন ডলার সংগ্রহ করেন।

কিন্তু প্রকাশিত কলামে এই কুখ্যাত নেত্রীকে ‘নিবেদিত প্রাণ নেত্রী’ হিসেবে উল্লেখ্য করা হয়। এবং দারিদ্রতা ও অস্বচ্ছলতার বিরুদ্ধে কাজ করেছেন বলে প্রশংসা করা হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই কলামের ব্যাপক নিন্দা হচ্ছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক ব্যবহারকারী মন্তব্য করেন, গোল্ডা মেয়ারের মত ব্যক্তির এভাবে প্রশংসা করা সত্যিই অবাক করার মতো বিষয়। এতে তার নৈতিক দিক প্রশ্নবৃদ্ধ হয়।

আল জাজিরার সান্ধ্যকালীন লাইভ অনুষ্ঠানে এক ব্যক্তি মন্তব্য করেন, নিশ্চয়ই এটা একটি পরিকল্পনার অংশ। এতে ইসরাইলের আসল চেহারাকে সুন্দরভাবে দেখানো, ইসরাইলীদের তৈলমর্দন ও তারা আমাদের শত্রু নয় তা উপস্থাপন করা উদ্দেশ্য। আগে থেকেই দখলদারি নেতা ও ইহুদিবাদী শত্রুদের বিভিন্ন টিভি ও ড্রামা সিরিয়ালে আকর্ষণীয় ভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে।

এটা স্পষ্ট যে এতে সৌদি জনগণের কোনো দোষ নেই। তারা এসমস্ত কোনো মনোভাব পোষণ করেন না। কিন্তু যুবরাজ মুহাম্মাদ বিন সালমান ইহুদিবাদী ইসরাইল ও আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে খুশি করার জন্য এসব কর্মকাণ্ড বাস্তবায়ন করছেন। তিনি বিশ্বাস করেন এসবে তার ক্ষমতা আরো পাকাপোক্ত হবে। পিছন থেকে বন্ধুদের থেকে সহায়তা পাবেন।

ইতিপূর্বে ও ‘এক্সিট ৭’ ও ‘উম্মে হারুন’ নামক দুইটি টিভি সিরিজে ইহুদিবাদী ইসরাইলকে প্রমোট করে ফিলিস্তিনের প্রতি বিদ্বেষমূলক মনোভাব প্রচার করা হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন এসব কোনো ভুলক্রমে নয় বরং পরিকল্পিত। সৌদি নাগরিক এর বিরুদ্ধে কিছু বলার সক্ষমতা রাখেন না। কিছু বললেই তাদেরকে আটক করে অসহনীয় নির্যাতন শুরু হয়ে যায়।

সৌদির নেতৃত্বে আমিরাত ও বাহরাইন ইহুদিবাদী ইসরাইলের অনুকরণ করছে। ধীরে ধীরে ইহুদিবাদী বক্তব্য দ্বারা এসমস্ত অঞ্চলের মানুষের মনোভাব পরিবর্তন করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

আল জাজিরা থেকে অনুবাদ