হজ্বের কার্যক্রম: হজ্বযাত্রীরা আজ আরাফাত ও মুজদালিফাতে অবস্থান করবে

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | মুহাম্মাদ জিন্নুরাইন


সৌদিতে স্থানীয় সময় অনুযায়ী আজ ৯ই জিলহজ্ব। সে হিসাবে আজ সূর্যদয়ের পর মিনা থেকে আরাফাতের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হওয়া উত্তম। ৯ই জিলহজ্ব সূর্য ঢলার পর থেকে আরাফাতে অবস্থান সুন্নত। সূর্যাস্তের আগে কেও আরাফাতে পৌঁছে গেলে সূর্যাস্ত পর্যন্ত সেখানে অবস্থান করা ওয়াজিব।

সে হিসাবে তীর্থযাত্রীরা স্থানীয় সময় ফজরের পরেই মিনা থেকে আরাফার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েছে। আজ জোহর থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত হজ্বের মূল মগজ। হাজ্বীরা এ সময়ে নিবিষ্ট মনে দুআ-পার্থনায় লিপ্ত থাকে।

সূর্য ঢলে যাবার পর জোহরের নামাজের পূর্বে সকলে সুন্নত গোসল আদায় করে। অতঃপর যাদের সম্ভব হয় ও নিকটবর্তী এলাকায় অবস্থান করে, তাঁরা আরাফার কেন্দ্রবিন্দু মসজিদে নামিরার জামাতে জোহর ও আসরের নামাজ একত্রে আদায় করবে।

আরাফাতের ময়দানে নিশ্চিত দোয়া কবুলের ওয়াদা আছে। তাই তীর্থযাত্রীরা নৈকট্য ও মাগফিরাত লাভের আশায় একাগ্রচিত্তে খোলা আকাশের নিচে দোয়ায় মশগুল রয়েছে।উল্লেখ্য, আল্লাহর রহমতের বহিঃপ্রকাশ হিসাবে পুরো বছর বৃষ্টিশুন্য থাকলেও প্রতিবছর আরাফাতের ময়দানে এদিনে শান্তিময় বৃষ্টিবর্ষণ হয়।

সূর্যাস্তের পর হজ্বযাত্রীরা আরাফার থেকে মাগরীবের নামাজ না পড়ে মুজদালিফার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবেন। ওয়াজিব হিসাবে তাঁরা মাগরিব ও ইশার নামাজ মুজদালিফায় আদায় করবেন। অতঃপর রাত্রিযাপন শেষে আগামিকাল ১০ তারিখ সুবহে সাদিক থেকে চতুর্দিকে ফর্সা হওয়া পর্যন্ত হাজ্বীরা অবস্থান করবে (ওয়াজিব হিসাবে)।

মুজদালিফায় অবস্থানকালে হাজ্বীরা পরদিন জামারার জন্য কংকর একত্রিত করবেন। ১০তারিখ আসমান পূর্ণ ফর্সা হবার পর হাজ্বীরা মিনায় স্বীয় তাবুতে ফিরে আসবে অথবা সরাসরি জামারাতে কংকর নিক্ষেপের উদ্দেশ্যে গমন করবে।

প্রসঙ্গত, এবছর হজ্বের খুতবা প্রদান করছেন শাইখ আব্দুল্লাহ বিন সুলাইমান বিন মুহাম্মাদ আল মানি। তিনি মুহাম্মাদ বিন সৌদ ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শরীয়া বিভাগে ব্যাচেলর ডিগ্রি অর্জন করেন। এবং বিচারবিভাগের উচ্চ প্রতিষ্ঠান থেকে মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করেন। বর্তমানে তিনি রুলার কোর্টের সিনিয়র অধ্যাপক ও সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি কমিটির সদস্য। এছাড়াও তিনি ইসলামিক ফিকহ একাডেমির সদস্য। তিনি সৌদি আরবের অধিকাংশ ব্যাংকের শরীআ বোর্ডের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্বরত আছেন।

শেয়ার করুণ
  •