জাতিসংঘের সাথে দৃঢ় অংশীদারিত্ব চায় ঢাকা

কোভিড-১৯ মহামারি এসডিজি অর্জন বাধাগ্রস্ত করতে পারে জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন জাতিসংঘের সাথে দৃঢ় অংশীদারিত্বের ওপর জোর দিয়েছেন। তিনি জাতিসংঘের সাথে সমন্বিত অংশীদারিত্বের প্রয়োজনীয়তার ওপরও জোর দিয়েছেন যাতে বাংলাদেশের চলমান উন্নয়ন প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী কোভিড-১৯ এর প্রভাব থেকে উত্তোরণের জন্য বাংলাদেশ ও জাতিসংঘের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সহযোগিতা এবং দৃঢ় অংশীদারিত্ব চেয়েছেন।

বুধবার (১ জুলাই) রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন যমুনায় বাংলাদেশে জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারী মিয়া সেপ্পোর নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের প্রতিনিধিদলের সাথে বৈঠককালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বৈঠকে ড. মোমেন দারিদ্র্য হ্রাস, গড় আয়ু বৃদ্ধি, মাতৃ ও শিশু মৃত্যুর হার হ্রাস এবং অন্যান্য আর্থ-সামাজিক খাতে বাংলাদেশের অগ্রগতির কথা তুলে ধরেন। তৈরি পোশাক খাত এবং প্রবাসী কর্মসংস্থানের ওপর করোনা মহামারি নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে আশঙ্কা করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এ দুটি খাত বাংলাদেশের অর্থনীতির মূল ভিত্তি।

তিনি ফেরত আসা অভিবাসী শ্রমিকদের নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন এবং তাদের পুনরায় কর্মসংস্থান এবং বিদেশে ফিরে যেতে জাতিসংঘের সহায়তা চান। ড. মোমেন বাংলাদেশের বৃহৎ জনগোষ্ঠীর কথা বিবেচনা করে জাতিসংঘ আরও সহায়তা বাড়াবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশে জলবায়ু প্রভাবের কথা তুলে ধরেন এবং প্যারিস চুক্তির আলোকে জলবায়ু প্রভাব নিরসনে উন্নত দেশগুলোর দায়িত্বের কথা স্মরণ করিয়ে দেন।