মক্কা-মদীনা শাটডাউন করতেই করোনা ইসরায়েল ও আমেরিকার সৃষ্টি : ইয়েমেনের বিশিষ্ট আলেম


করোনাভাইরাস ইহুদি, ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্রের সৃষ্টি বলে মন্তব্য করেছেন ইয়েমেনি স্কলার ইব্রাহিম আল-উবেইদী।

হারামাইন শরীফাইন (মক্কা ও মদীনার প্রধান মসজিদ) বন্ধের ঘটনা প্রসঙ্গে সৌদি নীতির সমালোচনা করেন উবেইদী। ইহুদীবাদী সন্ত্রাসী রাষ্ট্র ইসরায়েলের সঙ্গে সৌদির গোপন আঁতাতের অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, এই ভাইরাসকে যদি ডান্স হলে না পাওয়া যায়, যেখানে নারী-পুরুষরা একসঙ্গে নৃত্য করে তাহলে পবিত্র স্থাপনায় কেন পাওয়া যাবে যেখানে কি না প্রার্থনা করা হয়।

তিনি বলেন, ফিলিস্তিন ইসরায়েল ইস্যুতে সৌদি সর্বদাই ইসরায়েলের পক্ষে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের রাজধানী থেকে নিয়ে ইসরায়েলের রাজধানী ঘোষণা দেবার পর মুসলিম উম্মাহের বিপক্ষে যেয়ে ইসরায়েলকেই শক্তি যুগিয়েছে সৌদি।

শুক্রবার (২৭ মার্চ) বক্তৃতায় তিনি দাবি করেন, ইসলামের পবিত্র দুটি মহান স্থান মক্কা ও মদীনা বন্ধ করে দিতে কোভিড-১৯ (করোনাভাইরাস) তৈরি করেছে ইহুদি ও আমেরিকানরা।

ইয়েমেনি এই স্কলারের বক্তব্যের উদ্ধৃতি দিয়ে মিডল ইস্ট মিডিয়া রিসার্চ ইনস্টিটিউট (মেমরি) রোববার এক টুইটে জানায়, এই মহামারি শুধু এই গোপন ষড়যন্ত্রের ফলই নয়, সৌদি রাজপরিবার গোপনে ইহুদি ধর্ম চর্চাও করে চলেছে। তারা মোরদেচাই (যিনি ইরাক বাস করতেন) নামের এক ইহুদির অনুসারী।

মেমরি প্রকাশিত ওই ভিডিওতে আল-উবেইদিকে বলতে শোনা যায়, ইসলামের দুটি পবিত্র শহর যেখানে ধর্মীয় স্থাপনা রয়েছে, তার দখল নিতে শত শত বছর ধরে ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে ইহুদিরা। এ ভাইরাস (করোনা) তাদের সৃষ্টি।

আল-উবেইদীর দাবি, প্রয়াত হুসেইন বদরেদ্দিন আল-হুতি এই ভাইরাসের ব্যাপারে আগেই সতর্ক করে দিয়েছিলেন। তিনি বলেন, আল-হুতি বলেছিলেন, ইসলামের এই পবিত্র নিদর্শন দুটি বন্ধ করে দিতে ভাইরাস ও জীবাণুর ব্যবহার করতে পারে ইহুদি ও আমেরিকানরা।

অপর এক স্কলার ডা. ইয়াসির কাধি টুইটারে এক বার্তায় বলেন, সুবহান আল্লাহ, পবিত্র কাবা এখন জনমানবশূন্য। তাওয়াফ বন্ধ রয়েছে। করোনাভাইরাস আতঙ্কে কর্তৃপক্ষ হারাম শরীফ পরিষ্কার করছেন। আল্লাহ আমাদের সবাইকে রক্ষা করুন।

মুসলিমদের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ধর্মীয় স্থাপনা মক্কার পবিত্র গ্রান্ড মসজিদ। এই মসজিদের প্রাণকেন্দ্রে কাবা শরীফের অবস্থান। বিশ্বজুড়ে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ভয়াবহ আকার ধারণ করায় সৌদি আরব এর আগে বিদেশি এবং নিজ দেশের নাগরিকদের পবিত্র ওমরাহ পালন স্থগিতের ঘোষণা দেয়।

সূত্র : জেরুজালেম পোস্ট