ভারত সীমান্তে এখনো ৪০ হাজার সৈন্য রেখে দিয়েছে চীন!

পূর্ব লাদাখের যেসব জায়গায় অনুপ্রবেশ করেছিল চীন সেনাবাহিনীর সদস্যরা, সেখান থেকে এখনও সরেনি। এই তথ্য সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছে ভারতের সরকারি সূত্র।

গালওয়ানে ১৫ জুন মুখোমুখি সংঘর্ষ হয় ভারত ও চীনের। নিহত হয় ২০ জন ভারতীয় জওয়ান। তার পর তিন বার আলোচনায় বসেন দুই দেশের সেনাকর্মকর্তারা। উভয়ই পূর্ব লাদাখ থেকে সেনা সরিয়ে নিতে সম্মত হয়। কিছু এলাকা থেকে সেনা সরাতেও শুরু করে চীন। যেমন গালওয়ান, হট স্প্রিং, প্যাংগং হ্রদ বরাবর আঙুলাকৃতি এলাকা (‌ফিঙ্গার রিজিওন)‌–র কিছু অংশ থেকে সেনা সরিয়ে নিয়েছে চীন। সেই মতো ভারতও সেনা সরায়।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে যে কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে, ডেপসাং সমতল অঞ্চল, গোগরা এবং প্যাংগং হ্রদ বরাবর ফিঙ্গার অঞ্চলে এখনো চীনের সেনা মজুত রয়েছে। অথচ কথা হয়েছিল, এই এলাকাগুলোয় দুই দেশেরই সেনা থাকবে না। এগুলো বাফার জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছিল। ফিঙ্গার ৫ এলাকা দখল করেছিল চীনা সেনাবাহিনী। সেখান থেকেও সরেনি তারা। ফিঙ্গার ৮–এ তাদের পুরনো ঘাঁটি রয়েছে। ভাবা হয়েছিল, ফিঙ্গার ৫ থেকে সেখানেই সরে যাবে চীনা সেনা। কিন্তু তা হয়নি। ভারতীয় সূত্রের খবর, এসব এলাকায় এখনো অন্তত ৪০ হাজার চীন সেনা রয়েছে। তাদের আধুনিক অস্ত্র, অস্ত্র বহনে সক্ষম যান রয়েছে।

দুই দেশের সেনাকর্তাদের শেষ কথা হয়েছিল ১৪–১৫ জুলাই। তখন দু’‌দেশই সেনা সরাতে সম্মত হয়। অথচ খবর, তার পর থেকে আর সেনা সরায়নি চীন। পূর্ব লাদাখের দু’‌টি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট গোগরা, হট স্প্রিংয়ে নির্মাণও শুরু করেছে চীনা সেনাবাহিনী।

সূত্র : আজকাল