বাড়িভাড়া নিয়ে শিক্ষার্থীদের সাথে অমানবিক আচরণে ইশা ছাত্র আন্দোলনের প্রতিবাদ

কোভিড-১৯ সৃষ্ট বিপর্যয়ে মানুষ যখন দুমুঠো খাবার পাচ্ছেনা, তখন বাড়ি ভাড়ার জন্য শিক্ষার্থীদের শিক্ষাসনদ, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নিবন্ধনপত্র, বই-খাতাসহ যাবতীয় মালামাল ময়লায় ফেলে দেয়া চরম ধৃষ্টতা নিষ্ঠুর ও অমানবিক বলে মন্তব্য করেছে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন। এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে সংগঠনের নেতারা দোষীদের দ্রুত বিচারের দাবি জানান।

আজ শুক্রবার (৩ জুলাই) সংবাদমাধ্যমে প্রেরিত এক যৌথ বিবৃতিতে বিচারের দাবি জানান সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সভাপতি এম. হাছিবুল ইসলাম এবং সেক্রেটারি জেনারেল নূরুল করীম আকরাম।

নেতৃবৃন্দ বলেন, কলাবাগানের ওয়েস্টার্ন স্ট্রিটের একটি বাড়ির নিচতলায় মেসে থাকা আট শিক্ষার্থীর তিনটি কক্ষের তালা ভেঙে তাদের শিক্ষাসনদ, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নিবন্ধনপত্র, বই-খাতাসহ যাবতীয় মালামাল ভাগাড়ে ফেলে দিয়েছেন বাড়িওয়ালা। একইভাবে পূর্ব রাজাবাজারে আলিফ ছাত্রাবাসের ৫০ শিক্ষার্থীর শিক্ষাসনদ ও মালামাল গায়েব করে দিয়েছে ছাত্রাবাসের মালিক খোরশেদ আলম। এ যেন মগের মুল্লক পেয়েছে। এহেন আচরণের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ অন্ধকারে ঠেলে দেয়া হয়েছে বলে মনে করেন তারা।


নেতৃদ্বয় উভয় বাড়ির মালিককে গ্রেফতার করে সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি করেন এবং কলাবাগান ও রাজাবাজারের ৫৮ শিক্ষার্থীর পরিপূর্ণ ক্ষতিপূরণ আদায় না হওয়া পর্যন্ত যেন কোনোভাবে মাসোয়ারায় বিচারিক কার্যক্রম বন্ধ হয়ে না যায় সে বিষয়ে প্রশাসনকে সতর্ক থাকার আহবান জানান তারা।

নেতৃদ্বয় এধরণের ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে না ঘটে সেজন্য সারাদেশে বাড়ির মালিকদের প্রতি অনুরোধ জানান। তারা বলেন, করোনাকালীন এ সময়ে বাড়িওয়ালা থেকে শুরু করে সকলকেই মানবিক হতে হবে। এ ব্যাপারে সরকার ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।