প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের সময় চেয়েছেন ভারতীয় হাইকমিশনার

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে সময় চেয়েছেন ঢাকায় ভারতের বিদায়ী হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলি দাস।

সংশ্লিষ্ট দফতরে এ সংক্রান্ত নোট ভারবাল দিয়েছে ভারতীয় হাইকমিশন। কূটনৈতিক সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

জানা যায়, ভারতীয় হাইকমিশনের এ সংক্রান্ত নোট ভারবাল পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দক্ষিণ এশিয়া অনুবিভাগ ইতোমধ্যে রাষ্ট্রাচার অনুবিভাগের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর দফতরের বিবেচনায় পাঠিয়েছে।

এর আগে রীভা গাঙ্গুলি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাক্ষাৎ পাননি বলে বাংলাদেশ-ভারতের কতিপয় গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়। তবে বিষয়টি সত্য নয় বলে জানায় ভারতের পররাষ্ট্র দফতর।

গত ৩০ জুলাই নয়াদিল্লির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব এক প্রতিক্রিয়ায় এ বিষয়ক খবরকে ‘বানোয়াট গল্প’ বলে অভিহিত করেন। তিনি দুদেশের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের নানা দিকও উল্লেখ করেন।

রীভা গাঙ্গুলির প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ চাওয়ার বিষয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানান, এর আগে ভারতীয় হাইকমিশনার প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ চাননি। সবাই জানেন যে, করোনাভাইরাসের কারণে একটা বিশেষ সময় পার করছি আমরা।

কূটনৈতিক সূত্র জানায়, ভারতীয় হাইকমিশনার প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ পেতে যাচ্ছেন। শুধু তিনিই নন, করোনাভাইরাসের কারণে যতজন বিদেশি দূত প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ চেয়ে এখনো সময় পাননি, তারাও একে একে সাক্ষাতের সময় পাবেন।

তবে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে রীভা গাঙ্গুলির এটি বিদায়ী সাক্ষাৎ কি-না সেটি নোট ভারবালে উল্লেখ নেই। ফলে তার এই সাক্ষাৎকে সৌজন্য সাক্ষাৎ হিসেবেই বিবেচনা করছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

উল্লেখ্য, যে কোনো বিদেশি রাষ্ট্রদূতের চূড়ান্তভাবে বিদায় রাষ্ট্রপতির কাছ থেকে নেয়াই রেওয়াজ। তবে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সাথে সাক্ষাতের সময় এখনো চাননি ভারতের বিদায়ী হাইকমিশনার।