গাজীপুরে ঈদে ১০ দিন ছুটির দাবিতে শ্রমিক বিক্ষোভ

গাজীপুরের টঙ্গীতে ঈদের ছুটি ১০ দিন ও জুলাইয়ের পুরো বেতনের দাবিতে একটি কারখানার শ্রমিকরা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখিয়েছে। তাছাড়া শ্রমিকদের ইটপাটকেলে অন্তত তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন বলে টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসি এমদাদুল হক জানান।

তিনি বলেন, সরকার ঘোষিত ১৫ দিনের বেতন ও ঈদ উপলক্ষে তিন দিনের ছুটি না মেনে ভিয়েলা টেক্স নামের একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা এই বিক্ষোভ দেখান।

শনিবার (২৪ জুলাই) সকালে টঙ্গীর গাজীপুরা এলাকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখানোর সময় ওই সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে হয়।

শ্রমিকরা জুলাইয়ের পুরো বেতন ও ১০ দিনে ঈদের ছুটি দাবি করেছেন বলে জানিয়েছেন ওসি মুহাম্মাদ এমদাদুল হক।

তিনি বলেন, বিক্ষোভের সময় মহাসড়ক অবরোধ করায় যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শ্রমিকদের মহাসড়ক থেকে সরাতে চাইলে তারা পুলিশকে লক্ষ করে ইটপাটকেল ছোড়ে।

“পুলিশের সঙ্গে শ্রমিকদের ধাওয়া-পাল্টা-ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। একপর্যায়ে কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করে পুলিশ। প্রায় আধা ঘণ্টার চেষ্টায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলে আবার যান চলাচল শুরু হয়।”

এ সময় শ্রমিকদের ইটের আঘাতে শিল্প পুলিশের এএসপি এস আলম ও পরিদর্শক রেজ্জাকুল হায়দারসহ কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন বলে গাজীপুর শিল্পাঞ্চল পুলিশের অতিরিক্ত সুপার মুহাম্মাদ জালাল উদ্দিন আহমেদ জানান।

তিনি বলেন, শ্রমিকদের ইটপাটকেল নিক্ষেপের কারণে শিল্পাঞ্চল এস আলম নাকে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম হয়েছেন। আর রেজ্জাকুলসহ কয়েকজন হাতে ও পায়ে আঘাত পেয়েছেন। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

বিষয়টি নিয়ে কারখানা কর্তৃপক্ষ ও বিজিএমইএ নেতারা বৈঠক করছেন বলে তিনি জানান।


কারখানাটির মানব সম্পদ বিভাগের প্রধান আবু হেনা মোস্তফা কামাল বলেন, তারা আট দিনের ঈদের ছুটি ঘোষণা করেছেন। শ্রমিকরা তা না মেনে আন্দোলন শুরু করেন।