স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ চান আ’লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলের শরীকরা

দেশের স্বাস্থ্য খাত অব্যবস্থাপনা, অনিয়ম ও দুর্নীতিতে ছেয়ে গেছে বলে অভিযোগ ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোট শরিকদের। এই জোটের মতে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে স্বাস্থ্য খাতের মুখোশ খুলে পড়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ওপরে দেশের মানুষের দৃষ্টিভঙ্গি ইতিবাচক নয় বলেও মন্তব্য করেন জোটের নেতারা।

এদিকে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালকের সরে যাওয়াকে অনেকে ইতিবাচক উল্লেখ করলেও ১৪ দলের মতে, যেসব অনিয়ম-দুর্নীতির কারণে তিনি পদ ছেড়েছেন, সে জন্য তিনি একা দায়ী নন। মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ ছাড়া ডিজির পক্ষে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্ভব নয়। কাজেই এসব দুর্নীতি-অনিয়মের দায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বা মন্ত্রণালয় এড়াতে পারে না। নৈতিকতার জায়গা থেকে দায় নিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সরে যাওয়া উচিত মন্তব্য করে ১৪ দলের নেতারা বলেছেন, শুধু ডালপালা ছেঁটে লাভ হবে না। গোটা স্বাস্থ্য ব্যবস্থার সংস্কার করতে হবে। স্বাস্থ্য খাতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে হবে।

করোনা প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকেই স্বাস্থ্য বিভাগে একের পর এক অনিয়ম ও দুর্নীতির ঘটনা ঘটেছে। দেশের স্বাস্থ্যসেবা খাতের দুরাবস্থার চিত্র স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। ১৪ দলের নেতারা স্বাস্থ্য খাতের সমন্বয়হীনতা ও দুর্নীতির বিষয়ে আগে থেকেই সরকারকে সতর্ক করে আসছে। শরিকদের কেউ কেউ জাতীয় সংসদেও স্বাস্থ্য খাতের অনিয়ম ও দুরাবস্থার কথা তুলে ধরেছেন। তারা কোভিড-১৯ মোকাবিলায় সব রাজনৈতিক দলের সমন্বয়ে জাতীয় কমিটি করার প্রস্তাব দিয়েছেন। তবে ১৪ দলের অভিযোগ— সরকার তাতে কোনও কর্ণপাত করেনি।

করোনা পরিস্থিতিতে নমুনা পরীক্ষা, সুরক্ষা সামগ্রীসহ ছোট-বড় সব ধরনের কেনাকাটা, পণ্য সরবরাহ না করেই টাকা তুলে নেওয়া ও নিম্নমানের সুরক্ষা সামগ্রী সরবরাহসহ একের পর এক দুর্নীতি-অনিয়মের অভিযোগ আসছে। এসব অভিযোগের সঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদফতর ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টদের সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগ উঠেছে। এর জের ধরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। অধিদফতরের এক পরিচালককেও সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

About |

Check Also

করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর তথ্য গোপন করছে সরকার: রিজভী

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সরকার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুর তথ্য গোপন …