৮৬ বছর পর আয়াসোফিয়া গ্র্যান্ড মসজিদে ঈদের নামাজ আদায়

৮৬ বছর পর আজ তুরস্কের ঐতিহাসিক আয়াসোফিয়া গ্র্যান্ড মসজিদে পবিত্র ঈদুল আযহার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার স্মরণীয় এ ঈদুল আযাহার নামাজের জন্য আয়াসোফিয়া গ্র্যান্ড মসজিদের দেওয়াল ও সেজাদার স্থানে ছেটানো হয় গোলাপের পানি। মসজিদের ভেতর ও বাইরের প্রাঙ্গণের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ সম্পন্ন হয়।

এদিকে করোনা বিস্তাররোধে ইস্তাম্বুল সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে ঈদের নামাজ আদায়ে আগত মুসল্লিদের স্বাস্থ্যবিধি মানার অনুরোধ করা হয়। মাস্ক পরে জায়নামাজসহ নির্ধারিত স্থানে ধীরস্থির ভাবে সবাইকে উপস্থিত হতে বলা হয়। তাই ঈদের জামাতের সময় মুসল্লিদের নিরাপদ দূলত্ব বজায় রাখতে দেখা যায়।

১৪৫৩ সালে সুলতান মুহাম্মাদ আল ফাতিহ কর্তৃক কনস্টান্টিনোপল বিজয়ের পূর্বে ৯৬১ বছর পর্যন্ত আয়াসোফিয়া ক্যাথিড্রাল খ্রিস্টানদের গীর্জা হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছিল। এবং এখানে বসেই বিশ্বের মুসলিমদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হতো। বিজয় পরবর্তী সময়ে সুলতান মুহাম্মাদ আল ফাতিহ নিজ সম্পত্তি দিয়ে ক্রয় করে এটিকে মসজিদ হিসেবে ওয়াকফ করে দেওয়ার পর থেকে প্রায় ৫০০ বছর পর্যন্ত আয়াসোফিয়া মসজিদ হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছিল। কিন্তু তুরস্কের ইসলাম বিদ্ধেষী শাসক কামাল আতাতুর্কের শাসনামলে ১৯৩৪ সনে বিতর্কিত রায়ের মাধ্যমে মসজিদটিকে জাদুঘরে রূপান্তরিত করা হয়। এরপর থেকে মসজিদটিকে ফিরিয়ে আনতে মুসলমানদের দীর্ঘ ৮৬টি বছর অপেক্ষার প্রহর গুনতে হয়েছে। অবশেষে চলতি জুলাই মাসের ১০ তারিখে তুরস্কের শীর্ষ প্রশাসনিক আদালতের এক ঐতিহাসিক রায়ের মাধ্যমে ১৯৩৪ সালের জাদুঘরে রূপান্তরের বিতর্কিত রায়টি বাতিল করা হয়। এবং আয়াসোফিয়াকে পুনরায় মসজিদ হিসেবে রূপান্তরিত হয়।

সূত্র : টিআরটি

শেয়ার করুণ
  •