আমেরিকার মসজিদ গির্জাসহ সব উপাসনালয় খুলে না দিলে গভর্নরদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা ট্রাম্পের

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি সত্ত্বেও আমেরিকার সব মসজিদ, গির্জা, সিনাগগসহ সব ধরনের উপাসনালয় আজ-কালের মধ্যে খুলে দিতে গভর্নরদের নির্দেশ দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। নির্দেশ পালনে ব্যর্থ হলে গভর্নরদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ারও হুমকি দিয়েছেন তিনি।

এর আগে ইস্টার সানডে উপলক্ষে গত ১২ এপ্রিল দেশের সব গির্জা খুলে দেয়ার পক্ষে ছিলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। তবে এতে বাদ সাধেন তার প্রশাসনের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। তারা সতর্ক করে দেন, এই সময়ে গির্জা খুলে দিলে তা হবে ঝুঁকিপূর্ণ। পরে গির্জা খুলে দেয়ার পরিকল্পনা থেকে সরে আসেন ট্রাম্প। তবে বিধি-নিষেধ কিছুটা শিথিল হওয়ার কারণে সম্প্রতি কিছু কিছু অঙ্গরাজ্যে গির্জা খুলতে শুরু করেছে। তবে শুধু গির্জা নয়, এখন দেশের সব উপাসনালয় খুলে দেয়ার পক্ষে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

শুক্রবার হোয়াইট হাউসে এক সংবাদ সম্মেলনে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘আজ আমি স্বীকৃতি দিচ্ছি যে, গির্জা, সিনাগগ, মসজিদ-সব ধরনের উপাসনালয় গুরুত্বপূর্ণ সেবা দিয়ে আসছে। এই জায়গাগুলো সমাজের মধ্যে সেতুবন্ধন তৈরি করে এবং আমাদেরকে জনগণকে একতাবদ্ধ হতে সাহায্য করে। জনগণও গির্জা, সিনাগগ ও মসজিদে যেতে চায়।’

তিনি বলেন, ‘কিছু গভর্নর মনে করেন যে, শুধু মদের দোকান ও গর্ভপাত ক্লিনিকগুলোই গুরুত্বপূর্ণ জায়গা, তাদের কাছে গির্জা গুরুত্বপূর্ণ নয়। এটা ঠিক নয়। তাই আমি তাদের এ ধরনের অবিচার সংশোধন করে বলতে চাই যে, উপাসনালয়গুলোও গুরুত্বপূর্ণ জায়গা।’

তার এ নির্দেশ পালনে গাফিলতি দেখালে অঙ্গরাজ্যের গভর্নরদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, ‘যদি গভর্নররা আমার কথামতো উপাসনালয়গুলো খুলে দেয়ার ব্যবস্থা না নেয় তাহলে আমরা তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব।’ তবে তাদের বিরুদ্ধে কী ধরনের ব্যবস্থা নেবেন তা নির্দিষ্টভাবে উল্লেখ করেননি ডোনাল্ড ট্রাম্প।

তার এ সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে সাবেক ফেডারেল প্রসিকিউটর রেনাটো মারিওট্টি এক টুইটবার্তায় লিখেছেন, ‘রাজ্যের গভর্নররা ট্রাম্পের জন্য কাজ করেন না। তাই প্রেসিডেন্সিয়াল ডিক্রি জারি করে তিনি তাদের শাস্তি দিতে পারেন না।’

-আল-জাজিরা

Previous post এবার খুলনা কারাগারে হাজতির দেহে করোনা শনাক্ত
Next post ১৪৩ বস্তা সরকারি চাল পাচারের সময় আ.লীগের সাবেক সভাপতি আটক