প্রেমিকাকে গণধর্ষণে অন্যদের ফাঁসাতে গিয়ে নিজের ধর্ষণে আটক ছাত্রলীগ নেতা

ফেনীর সোনাগাজীতে কিশোরী প্রেমিকাকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের পর অন্যদের ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেলো আরিফুল ইসলাম সাকিব নামের এক বখাটে। সাকিব এলাকায় ছাত্রলীগ নেতা হিসেবে পরিচিত। এ ঘটনায় গ্রেফতারের পর সাকিবকে দুই দিনের রিমান্ড দিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্র জানায়, সোনাগাজী সদর ইউনিয়নের সুজাপুর এলাকার বাসিন্দা আল-হেলাল একাডেমীর ৯ম শ্রেণির এক ছাত্রীর সাথে প্রতিবেশী আরিফুল ইসলাম সাকিবের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। একপর্যায়ে গত ২৮ আগস্ট ওই ছাত্রীর মায়ের অনুপস্থিতিতে তার বাড়িতে গিয়ে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ করে। একপর্যায়ে চতুর সাকিব প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে প্রেমিকাকে দিয়ে একটি ভিডিও চিত্র ধারণ করে।

ওই ভিডিওচিত্র নিয়ে উল্লেখিত প্রতিপক্ষদের নামে থানায় মামলা করতে বলেন। কিশোরী অস্বীকৃতি জানালে ধর্ষণের ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয়। তাতেও সাকিব সায় না পেয়ে ভিডিও চিত্রটি নিয়ে কয়েকজন গণমাধ্যম কর্মীর দ্বারস্থ হয়। ঘটনাটি পুলিশ জেনে ওই কিশোরীকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে প্রকৃত চিত্র বেরিয়ে আসে। এ ঘটনায় নির্যাতিতা বাদী হয়ে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করে। পুলিশ বখাটে সাকিবকে গ্রেফতার করে।

সোনাগাজী মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ সাজেদুল ইসলাম জানান, গতকাল সোমবার বিকালে নির্যাতিতা কিশোরীকে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট শরাফ উদ্দিন আহমদের আদালতে হাজির করা হলে জবানবন্দি গ্রহণ করা হয়। একইসাথে বখাটে সাকিবকে হাজির করে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন জানানো হয়। আদালত শুনানী শেষে ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে।