তালেবানের সাথে আলোচনার আগে দুর্বল হয়ে পড়েছে আমেরিকা সমর্থিত আফগান সরকার

আমেরিকার নজরদারি প্রতিষ্ঠান স্পেশাল ইন্সপেক্টর জেনারেল ফর আফগানিস্তান রিকন্সট্রাকশ (এসআইজিএআর) জানায়, আফগান সরকারের মধ্যে থাকা দুর্নীতি তালেবানের সাথে আসন্ন আলোচনায় দরকষাকষিতে আফগান সরকারকে দুর্বল অবস্থায় ফেলে দিয়েছে। অন্যদিকে তালেবান বলেছে, তারা দীর্ঘ প্রতীক্ষিত আলোচনার জন্য তৈরী।

এসআইজিএআর-এর জন সোপকো বলেন, তালেবান ও অন্যান্য যোদ্ধারা সরকারের দুর্নীতির বিষয়টি জানে। তারা একে ব্যবহার করতে চায়। আর এতে করে শান্তি আলোচনায় সরকারের অবস্থান দুর্বল হয়ে পড়তে যাচ্ছে।

এদিকে বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) কাবুলে নাগরিক সমাজের ৫০ জন কর্মী দুর্নীতির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে আমেরিকা সমর্থিত আফগান সরকারকে প্রতিশ্রুত ২২০ মিলিয়ন ডলার সাহায্য প্রদান থেকে বিরত থাকতে আইএমএফের প্রতি আহ্বান জানান। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে আফগানকে নিরাপদ রাখতে এই সহায়তার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল গত মাসে।

আফগানিস্তানে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ হাজারের বেশি।, মারা গেছে ৬৭৫ জন। তবে দেশটিতে খুবই কম পরীক্ষা করা হচ্ছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত লোকের সংখ্যা এর চেয়ে অনেক বেশি।

বিক্ষোভকারীরা বলেন, সরকার ইতোমধ্যেই বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার অপচয় করেছে। আমেরিকা সমর্থিত আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গণি সরকারের সমালোচনা করে সোপকো বলেন, তারা দুর্নীতি দমনের কথা মুখে বললেও কাজের ব্যাপারে কিছুই করে না।

আফগানিস্তানের মোট বাজেটের ৭৫ ভাগ দিয়ে থাকে আন্তর্জাতিক দাতারা। যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটির সামরিক ও নিরাপত্তা বাহিনীর জন্যই আমেরিকা ব্যয় করে বছরে ৪ বিলিয়ন ডলার। তবে আশরাফ গণির মুখপাত্র সেদিক সেদ্দিক সোপকোর সমালোচনার আপত্তি করে বলেছেন, সরকার দুর্নীতি দমনে অনেক কিছুই করেছে।

তালেবানের সাথে মার্কিন সমর্থিত আফগান সরকারের আলোচনার তারিখ এখনো নির্ধারিত হয়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, জুলাই মাসে কাতারে তা শুরু হতে পারে।

সূত্র: সাউথ এশিয়ান মনিটর