‘রামের জন্মভূমি অযোধ্যা ভারতে নয়, নেপালে’

১৫২৮ সালে ভারতের উত্তর প্রদেশের অযোধ্যা শহরে নির্মিত ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদের স্থানকে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের দেবতা রামচন্দ্র বা রামের জন্মভূমি হিসেবে আঠারো শতক থেকে দাবি করা হয়। হিন্দুদের দাবি মুঘল সম্রাট বাবরের আদেশে সেনাপতি মীর বাকী পূর্বে অবস্থিত রামমন্দিরের ওপর বাবরি মসজিদ নির্মাণ করেছেন। তবে আদৌ সেখানে রামমন্দির ছিল কিনা বা রামের জন্মভূমি অযোধ্যা ভারতে কিনা- তার ঐতিহাসিক প্রমান মেলেনি।

অযোধ্যাকে রামের জন্মভূমি দাবি করে ১৯৯২ সালে হিন্দু সন্ত্রাসীরা ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদকে শহীদ করে দেয়। এরপর ধারাবাহিক চেষ্টা চালানোর পর ২০১৯ সালের ৯ নভেম্বর বাবরি মসজিদের জমিটিকে হিন্দুদের জন্য রাম মন্দির নির্মাণের নির্দেশ দেয় ৫ বিচারকের সমন্বয়ে গঠিত ভারতের সর্বোচ্চ আদালতের একটি বেঞ্চ। তবে বাবরি মসজিদের জমিটি হিন্দুদের দেবতা রামের জন্মভূমি ছিলো বলে যে দাবি করা হয়, আদালতে তার প্রমাণ মেলেনি।

ভারতের অযোধ্যা শহরকে রামের জন্মভূমি হিসেবে যে দাবি করা হয় তাকে ওড়িয়ে দিয়েছেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা অলি। তিনি বলেন, রামচন্দ্র ভারতীয় ছিলেন না। আর জন্মস্থান অযোধ্যা ভারতে নয়, নেপালে।

সোমবার (১৩ জুলাই) ‘ভানু জয়ন্তী’ উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে তিনি এই ঘোষণা দিয়েছেন বলে নেপালি সংবাদমাধ্যম ‘খবরহুব’ সূত্রে খবরে বলা হয়েছে।

ওই ভাষণে নেপালের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভারত সাংস্কৃতিক সীমালঙ্ঘনের জন্য নকল অযোধ্যার নির্মাণ করেছে। আসল অযোধ্যা আমাদের নেপালে আছে। ভগবান রামচন্দ্রের জন্মস্থান নিয়ে ‘সত্যের বিকৃতি’ ঘটানো হয়েছে। এত দিন ধরে মিথ্যে দাবি করা হয়ে আসছে রামের জন্মস্থান ভারতের অযোধ্যায়।

নেপালের প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, সত্যিকারের অযোধ্যা বীরগঞ্জের পশ্চিমে, থোরিতে। কিন্তু, ভারত সেই সত্যের বিকৃতি ঘটিয়েছে। ভারতীয় অঞ্চলে ভগবান রামের জন্মেছেন বলে ওরা দাবি করে।

তিনি স্পষ্টভাবে বলেন, বীরগঞ্জের পশ্চিমে থোরিতে অবস্থিত অযোধ্যা। নেপালেই অবস্থিত বাল্মিকী আশ্রম আর নেপালেই রিদিতে দশরথ পুত্র সন্তান লাভের জন্য যজ্ঞ করেছিলেন। তিনি আরো বলেন, দশরথের ছেলে রাম ভারতীয় ছিলেন না আর অযোধ্যাও নেপালে।

ওলি এও বলেন যে, তার এই তত্ত্ব শুনে অনেকেই তার বিরুদ্ধে মুখ খুলতে পারেন।

সূত্র: টাইমস অফ ইন্ডিয়া, সাউথ এশিয়ান মনিটর

About |

Check Also

বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে সাত কোটি ছাড়াল

বিশ্বজুড়ে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ভয়াবহ হতে শুরু করেছে। বর্তমানে বিশ্বজুড়ে এ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে …