‘জিহাদের মাধ্যমেই কেবল ফিলিস্তিন মুক্ত হবে’

ইহুদিবাদী ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করা হলে ফিলিস্তিনিদের জন্য কোনো উপকার হবে না, বরং এতে দখলদার তেল আবিব সরকারের স্বার্থ রক্ষা করবে। একথা বলেছেন লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহর উপপ্রধান শেখ নাঈম কাসেম।

তিনি বলেন, সশস্ত্র প্রতিরোধই দখলদার ইসরাইলের কাছ থেকে ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড মু্ক্ত করার একমাত্র পথ। খবর পার্সটুডে’র।

ইরানের কোমে অনুষ্ঠিত ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে ইসরাইলের দখলদারিত্ব অবসানের কৌশল শীর্ষক একটি বৈঠকে এক ভার্চুল বক্তৃতায় শেখ নাঈম এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, দখলদার গোষ্ঠিটি ক্ষমতাধর শক্তিগুলোর কাছ থেকে সামরিক এবং রাজনৈতিক সুবিধা গ্রহণ করে আসছে। ফলে ওই শক্তিধর রাষ্ট্রগুলোর মাধ্যমে তৈরি করা আইনের ওপর নির্ভর করে দখলদারদের বিতাড়িত করা যাবে না।

শেইখ নাঈম কাসেম বলেন, দখলদার ইসরাইলকে রক্ষা করতে এবং তাকে বৈধতা দেয়ার বিষয়ে ক্ষমতাধর রাষ্ট্রগুলোর স্বার্থ রয়েছে।ফলে এসব শক্তিগুলোর কাছে ধর্না দিলে ফিলিস্তিনসহ এ অঞ্চলের দেশগুলোর অনুকূলে কোনো লাভ হবে না।

তিনি আরো বলেন, “ফিলিস্তিন এবং জেরুজালেম আল কুদস মুক্ত করার জন্য আমাদের সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখা উচিত। এক্ষেত্রে সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক এবং সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তোলার পাশাপাশি সশস্ত্র প্রতিরোধ চালিয়ে যেতে হবে।” তবে সশস্ত্র প্রতিরোধের দিকেই আমাদেরকে নজর দিতে হবে বলেও জোর দিয়ে উল্লেখ করেন তিনি। হিজবুল্লাহর এ নেতা বলেন, “ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড আমরা কিভাবে ফিরে পেতে পারি? নিশ্চিতভাবেই লড়াই, জিহাদ এবং প্রতিরোধের মাধ্যমে আমরা এটা ফিরে পাবো। একমাত্র এই পথই আমাদের জন্য খোলা আছে।”