ট্যানারি মালিকদের সিন্ডিকেট ভেঙে দিতে সরকারের প্রতি শীর্ষ উলামায়ে কেরামের দাবি

ট্যানারি মালিকদের সিন্ডিকেট ভেঙে দিতে সরকারের প্রতি দাবি জানিয়েছেন কওমী মাদরাসা সমূহের সম্মেলিত বোর্ড আল-হাইআতুল উলয়া লিল জামিআতিল কওমিয়া বাংলাদেশ-এর নেত্রীবৃন্দরা।

সোমবার (১৩ জুলাই) বোর্ডের কার্যালয়ে কো-চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুল কুদ্দুছের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত স্থায়ী কমিটির সভায় এ সব দাবী জানানো হয়।

সভায় উপস্থিত ছিলেন আল্লামা  নূর হোসাইন কাসেমী, মাওলানা মুফতী মো: ওয়াক্কাস, মাওলানা নূরুল ইসলাম, মাওলানা আব্দুল হামীদ (মধুপুর পীর) মাওলানা আবু তাহের নদভী, মুফতী শাসমুদ্দীন জিয়া, মাওলানা আব্দুল বছীর, মাওলানা মুহিব্বুল হক, মাওলানা মাহমুদুল আলম, মুফতি মোহাম্মাদ আলী, মাওলানা ইয়াহইয়া মাহমুদ।

সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন মাওলানা সাজিদুর রহমান, মাওলানা বাহাউদ্দীন যাকারিয়া, মুফতী ফয়জুল্লাহ, মাওলানা মাহফুজুল হক,  মুফতী নূরুল আমীন, মাওলানা উবায়দুর রহমান মাহবুব, মাওলানা মোশতাক আহমদ, মাওলানা নূরুল হুদা ফয়েজী, মাওলানা আনাস মাদানী, মাওলানা উসামা আমীন এবং আল-হাইআতুল উলয়া বাংলাদেশ এর পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাওলানা মুহাম্মাদ ইসমাইল ও মাওলানা মুঃ অছিউর রহমান।

বৈঠকে নেত্রীবৃন্দ বলেন, ”কোরবানীর পশুর চামড়া অসহায় গরীব এতিমদের হক। অথচ এক শ্রেনীর ব্যবসায়রীরা সিন্ডিকেটের মাধ্যমে চামড়ার দাম কমিয়ে গরীব ও এতিমদের হক নষ্ট করছে এবং দেশের চামড়া শিল্পকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র করছে। নেতৃবৃন্দ মাননীয় প্রধামমন্ত্রীর নিকট ট্যানারি মালিকদের সিন্ডিকেট ভেঙে দিয়ে কুরবানীর পশুর চামড়ার ন্যায্যমূল্য প্রাপ্তি নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছেন। কুরবানীর ঈদ যত ঘনিয়ে আসছে, কুরবানীর পশুর চামড়ার দর নিয়ে বিগত বছরগুলোর ন্যায় ট্যানারি মালিক সিন্ডিকেট সক্রিয় হয়ে উঠছে। গত বছর দেশের বহু এলাকায় চামড়ার ন্যায্যমূল্য না পেয়ে স্থানীয় জনগণ চামড়া মাটিতে পুঁতে ফেলে, আগুনে পুড়িয়ে ও পানিতে ফেলে প্রতিবাদ করেছে। এ বছর যদি ঈদের আগে চামড়ার ন্যায্যমূল্য প্রাপ্তি নিশ্চিত করা না যায়, তবে দেশের মাদরাসাগুলো এবং ক্ষুদ্র চামড়া ব্যবসায়ীগণ চামড়া সংগ্রহে আগ্রহ হারিয়ে ফেলবে। ফলে দেশের বিপুল পরিমাণ সম্পদ নষ্ট হবে এবং বৈদেশিক মুদ্রা প্রাপ্তির অন্যতম শিল্প ধ্বংস হবে।”

Previous post তুরস্ক থেকে সশস্ত্র ড্রোন কিনছে ইউক্রেন
Next post সাহেদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে আদালত