উপনির্বাচন: বগুড়া ও যশোরে নিয়ম রক্ষার ভোট চলছে

মহামারি করোনা ও বন্যার মধ্যেই যশোর-৬ ও বগুড়া-১ সংসদীয় আসনে ‘সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার’ উপ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে।

মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) সকাল ৯টা থেকে শুরু হওয়া এই ভোটগ্রহণ চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত।

এর মধ্যে বগুড়ায় বন্যার পানি বেড়ে যাওয়ায় ১৬টি ভোটকেন্দ্র স্থানান্তর করে অস্থায়ী কেন্দ্র স্থাপন করে ভোট গ্রহণের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে বগুড়া-১ আসনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ইসির উপসচিব মাহবুব আলম শাহ জানিয়েছেন।

নিয়ম অনুযায়ী, আগের দিন ভোটের সরঞ্জাম ও সুরক্ষা সামগ্রী কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে দেওয়া হলেও ব্যালট পেপার পৌঁছানো হয়েছে মঙ্গলবার সকালে ভোট শুরুর আগে।

রিটার্নিং কর্মকর্তারা বলছেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে ভোটার ও নির্বাচনী কর্মকর্তাদের জন্য প্রয়োজনীয় সুরক্ষা সামগ্রী রাখা হয়েছে। সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভোট দেবেন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবেন এবং নিয়মিত হাত পরিষ্কার রাখবেন।

সাড়ে পাঁচ লাখ ভোটারের এ দুই উপ নির্বাচনে সুরক্ষ সামগ্রীর জন্য আলাদা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। পাশাপাশি প্রথাগতভাবে নির্বাচন পরিচালনা ও আইন শৃঙ্খলা মিলিয়ে প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে।

বিএনপি ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী থাকলেও ভোট নিয়ে তাদের অনীহার মধ্যে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীর জন্য এটা হতে যাচ্ছে অনেকটা ‘আনুষ্ঠানিকতার’ নির্বাচন। বিএনপি বলছে, এ সময় ভোটে অংশগ্রহণ থাকবে না; আর জাতীয় পার্টি ভোট পেছানোর দাবি জানিয়ে সাড়া পায়নি।

বগুড়া-১ আসন:

গত ১৮ জানুয়ারি সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল মান্নান মারা গেলে আসনটি শূন্য ঘোষণা করে সংসদ সচিবালয়। এরপর শূন্য আসনে নির্বাচনের জন্য ১৬ ফেব্রুয়ারি তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। এ আসনে ৩ লাখ ৩০ হাজার ৮৯৩ জন ভোটার।

প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের প্রার্থী সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল মান্নানের সহধর্মিণী সাহাদারা মান্নান (নৌকা), বিএনপির একেএম আহসানুল তৈয়ব জাকির (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টির মোকছেদুল আলম (লাঙ্গল), প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দলের (পিডিপি) রনি (বাঘ), বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের নজরুল ইসলাম (বটগাছ) ও স্বতন্ত্র ইয়াসির রহমতুল্লাহ ইন্তাজ (ট্রাক)।

যশোর-৬ আসন:

আওয়ামী লীগের ইসমাত আরা সাদেক গত ২১ জানুয়ারি মারা যাওয়ায় যশোর-৬ আসনটি শূন্য হয়। এ আসনে ২ লাখ ৩ হাজার ১৮ জন ভোটার।

এই আসনের প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের শাহীন চাকলাদার (নৌকা), বিএনপির আবুল হোসেন আজাদ (ধানের শীষ) ও জাতীয় পার্টির হাবিবুর রহমান হাবিব (লাঙ্গল)।

এই দুই আসনেই ভোটগ্রহণের কথা ছিল গত ২৯ মার্চ। কিন্তু করোনার কারণে ভোটের এক সপ্তাহ আগে ২১ মার্চ নির্বাচন স্থগিত করা হয়। তবে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা হিসেবে ১৮০ দিন সময় শেষ হয়ে আসায় করোনার মধ্যেই আবার ভোটের সিদ্ধান্ত দেয় ইসি।

About |

Check Also

প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে উন্নয়নের মহাসড়ক দিয়ে চলছে বাংলাদেশ: প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দুর্বার গতিতে …