সকালে করোনামুক্ত ঘোষণা, সন্ধ্যায় মৃত্যু

শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার জমাদ্দারকান্দি গ্রামের শাহ আলম জমাদ্দার (৮৭) হৃদরোগ ও কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন। গত এপ্রিলে তিনি ঢাকায় চিকিৎসা নিতে যান। ২৩ এপ্রিল সেখানে তাঁর করোনা শনাক্ত হয়। এরপর তিনি বাড়ি ফিরে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে তাঁকে করোনামুক্ত ঘোষণা করা হয়। কিন্তু সন্ধ্যায় তিনি মারা যান।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মাহামুদুল হাসান বলেন, ‘সকালে প্রশাসনের সব পর্যায়ের কর্মকর্তারা শাহ আলম জমাদ্দারের বাড়ি গিয়ে তাঁকে করোনামুক্ত হওয়ার খবর দিই। তখন তিনি ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা অনেক আনন্দিত হয়েছিলেন। বিকেলে হঠাৎ তাঁর অসুস্থ হওয়ার খবর শুনে মনটা খারাপ হয়ে যায়। চিকিৎসক নিয়ে তাঁর বাড়ি যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। এমন সময় সন্ধ্যা সাতটার দিকে ফোনে জানতে পারি, তিনি মারা গেছেন। তাঁর পরপর দুবার করোনা পরীক্ষার প্রতিবেদন নেগেটিভ আসায় মৃত্যুর পর শাহ আলমের আর পরীক্ষা করা হয়নি। তাঁকে স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়।’

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, শাহ আলম বার্ধক্যজনিতসহ হৃদরোগ ও কিডনির জটিলতায় ভুগছিলেন। এ কারণে প্রায়ই তাঁকে হাসপাতালে নিতে হতো। অসুস্থতা বেশি হওয়ায় এপ্রিলের দ্বিতীয় সপ্তাহে তাঁকে ঢাকায় নেওয়া হয়। ২১ এপ্রিল ঢাকার আজগর আলী হাসপাতালে বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার সঙ্গে শাহ আলমের করোনা পরীক্ষা করা হয়। ২৩ এপ্রিল তাঁর প্রতিবেদন ‘পজিটিভ’ আসে। বাড়ি ফিরে তাঁর সংস্পর্শে আসা আটজনের করোনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে তাঁর স্ত্রী ফতেজা বিবির (৭৫) করোনা শনাক্ত হয়। তাঁদের বাড়িতে আলাদা (আইসোলেশন) রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল। তাঁরা ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠছিলেন। পরপর দুই দফায় তাঁদের নমুনা পরীক্ষার ফলাফল ‘নেগেটিভ’ আসে। গতকাল তাঁদের করোনামুক্ত ঘোষণা করেন।

Previous post দেশে করোনায় মৃত ব্যক্তির প্রথম ময়নাতদন্ত করা হল সিলেটে
Next post করোনা উপসর্গ নিয়ে পুলিশ সদস্যের মৃত্যু