নিজ দেশে তৈরি ১ ডলার মূল্যের করোনা কিট দিয়ে বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে সেনেগাল

পশ্চিম আফ্রিকার ছোট একটি দেশ সেনেগাল। করোনা মোকাবেলায় বিশ্বে অনুকরণীয় হয়ে উঠেছে দেশটি।

দেশটিতে কম সময়ের মধ্যে প্রত্যেকের করোনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। পরীক্ষা করতে খরচ পড়ছে মাত্র ১ ডলার।

সেনেগালে নেই কোনো করোনা কিটের সঙ্কট। দেড় কোটি জনসংখ্যার দেশটিতে মাত্র ৫০টি ভেন্টিলেটর রয়েছে। দেশটির প্রকৌশলীরা থ্রিডি প্রিন্টিংয়ের মাধ্যমে সহজ ও সস্তায় ভেন্টিলেটর মেশিন তৈরি করছে। সেনেগালের তৈরি কিটও রয়েছে ২২৪ মিলিয়ন।

দেশটির গবেষকরা বলছেন, করোনা পরীক্ষা নির্ণয় আরও দ্রুত ও সহজে করতে আমরা নানা ডিভাইস ব্যবহার করছি। তারা বলছে, এটির পরীক্ষা কঠিন কিছু নয়। অনেকটা প্রেগন্যান্সি টেস্টের মতো। আমাদের তৈরি কিটসগুলো সকল আফ্রিকান দেশেই ব্যবহৃত হচ্ছে।

চিকিৎসকরা বলছেন, এটি একটি সাধারণ পরীক্ষা। এটির পরীক্ষা সবখানে করা যায়। এরজন্য আহামরি ল্যাবরেটরিরও প্রয়োজন নেই। কারো করোনার লক্ষণ না থাকলেও স্বাস্থ্যকেন্দ্রে এসে পরীক্ষা করে যাচ্ছে। পরীক্ষার পর কেউ আক্রান্ত হলে তাদের আইসোলেশনে রাখা হচ্ছে।

সেনেগাল আফ্রিকার দেশগুলোর মধ্যে করোনায় আরোগ্য লাভে শীর্ষে রয়েছে। যা সমস্ত বিশ্বের হিসেবে রয়েছে তৃতীয় স্থানে।

করোনা সংক্রমণ ও মহামারি ঠেকাতে দেশটির এমন অভিজ্ঞতা ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর জন্য নিঃসন্দেহে শিক্ষণীয়।

আন্তর্জাতিক জরিপকারী সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য মতে, সেনেগালে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৭৩৬ জন, সুস্থ হয়েছেন ২৮৪ জন, মারা গেছেন ৯ জন।