করোনাভাইরাস ছড়িয়ে দিয়ে আমাকে নির্বাচনে হারাতে চায় চীন: ট্রাম্প

আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দাবি করেছেন, আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তাকে পরাজিত দেখতে চায় চীন। এর জন্য তারা সব ধরনের চেষ্টা করতে ব্যস্ত রয়েছে।

তিনি বলেছেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণের বিষয়ে বিশ্ববাসীকে আগে থেকে সতর্ক করেনি চীন। আর এমনটি করায় বেইজিংকে অনেক বড় ফল ভোগ করতে হবে।

সম্প্রতি বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে চীনের বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ আনেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

নির্বাচন নিয়ে করা এক জরিপ প্রসঙ্গে ট্রাম্প বলেন, মি. জো বাইডেন জিতবেন- এমন জরিপে আমার সন্দেহ রয়েছে। বস্তুত আমি এ জরিপ বিশ্বাস করি না। কারণ আমি বিশ্বাস করি, যুক্তরাষ্ট্রের জনগণ যথেষ্ট বুদ্ধিমান। তারা কোনো অযোগ্য ব্যক্তিকে ক্ষমতায় বসাবে না।

এর আগে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গরাজ্যে ট্রাম্প হারতে চলেছেন এমন এক জরিপ প্রকাশিত হয়েছিল।

বার্তা সংস্থা এপি জানিয়েছিল, ট্রাম্পের অনেক সহযোগীদের ধারণা, আগামী নির্বাচনে মিশিগান, ফ্লোরিডা, উইসকনসিন ও অ্যারিজোনায় ট্রাম্প হারতে পারেন।

এমন জরিপ দেখে গত শুক্রবার এক জরুরি বৈঠক ডেকে রাজনৈতিক উপদেষ্টাদের সঙ্গে রীতিমতো ক্ষোভে ফেটে পড়েন ট্রাম্প।

তবে এ ক্ষেত্রেও চীন গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত বলে জানান ট্রাম্প।

তিনি বলেন, ডেমোক্র্যাট নেতা জো বাইডেনকে জয়ী করতেই উঠেপড়ে লেগেছে বেইজিং। এই দৌড়ে আমাকে হারাতে যে কোনো কিছু করতে পারে চীন।

চীনের উহান শহরে উৎপত্তির হলেও করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি বিধ্বস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। ট্রাম্প প্রশাসন সময়মতো যথাযথ পদক্ষেপ না নেয়ায় যুক্তরাষ্ট্রকে এর মূল্য দিতে হয়েছে অভিযোগ উঠেছে। তবে এসব অভিযোগ কানে না তুলে মহামারীর জন্য শুরু থেকেই চীনকে দায়ী করে আসছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

কয়েকদিন আগে মহামারী বিশ্বে ছড়িয়ে দেয়ার দায়ে চীনকে মোটা অঙ্কের আর্থিক ক্ষতিপূরণ দিতে হবে বলে বক্তব্য দিয়েছিলেন তিনি।

তিনি জানিয়েছেন, বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমণ ছড়ানোয় চীনের ভূমিকা নিয়েও তদন্ত শুরু করেছে মার্কিন প্রশাসন।